ভূমিকম্প: সিসিকের নির্দেশনার পর বন্ধ সিলেটের ঝুঁকিপূর্ণ ৬ মার্কেট

সময়ের ডাক :সিলেটে দু’দিন দফায় দফায় ভূমিকম্পের পর সিলেট সিটি করপোরেশন কর্তৃক চিহ্নিত করা ঝুঁকিপূর্ণ ৬ মার্কেট ১০ দিনের জন্য বন্ধ রেখেছে কর্তৃপক্ষ। সোমবার (৩১ মে) সকাল থেকে আগামী ৯ জুন পর্যন্ত এ সকল মার্কেট বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

এর আগে গতকাল রোববার বিকেলে বিশেষজ্ঞদের পরামর্শে নগরের ঝুঁকিপূর্ণ মার্কেটগুলো বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন সিলেট সিটি করপোরেশনের (সিসিক) মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। মেয়রের নির্দেশনার পর এই বিষয়ে করণীয় সম্পর্কে বৈঠকে বসেছেন মার্কেটগুলোর কর্তৃপক্ষ ও ব্যবসায়ীরা। পরে সোমবার থেকে ১০ দিনের জন্য মার্কেট বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেন ব্যবসায়ীরা।

মার্কেটগুলো হলো সিলেট নগরের বন্দরবাজারের সিটি সুপার, মধুবন সুপার মার্কেট, সমবায় ভবন, জিন্দাবাজারে মিতালী ম্যানশন, রাজা ম্যানশন ও সুরমা মার্কেট।

সোমবার সরেজমিনে নগর ঘুরে দেখা যায়, মার্কেটগুলোর প্রধান ফটক বন্ধ রয়েছে। বন্ধ রয়েছে মার্কেটের অভ্যন্তরের সকল দোকানপাট।

ভূমিকম্পের ‘ডেঞ্জার জোন’ হিসেবে পরিচিত সিলেটে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে ঝুঁকিপূর্ণ বহুতল ভবনগুলো। বড় ধরনের ভূমিকম্প হলে এসব ভবন ভেঙে পড়ে ব্যাপক প্রাণহানির আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

তাই এমন ক্ষয়ক্ষতি কমাতে নড়েচড়ে বসেছে নগর কর্তৃপক্ষ। এরই প্রেক্ষিতে ঝুঁকিপূর্ণ মার্কেটসহ সকল ঝুঁকিপূর্ণ ভবন পরিদর্শন করে ব্যবসায়ীদের আগামী ১০ দিন মার্কেট বন্ধ রাখার অনুরোধ জানান মেয়র আরিফ। একইসাথে ঝুঁকিপূর্ণ বাসাবাড়ির বাসিন্দাদেরও আগামী ১০ দিন অন্যত্র থাকার পরামর্শ দেন তিনি।

গতকাল রোববার অভিযান কালে মেয়র আরিফ বলেন, মার্কেট কিংবা দোকানপাট এক মিনিট বন্ধ থাকুক, তা আমিও চাই না। কিন্তু দফায় দফায় ভূমিকম্প হওয়াতে বিশেষজ্ঞদের মতামতের পরিপ্রেক্ষিতে বড় ধরনের ভূমিকম্প হতে পারে। এজন্য ভূমিকম্পে ক্ষয়ক্ষতির ঝুঁকি এড়াতে সবাইকে নির্দেশনা মানা প্রয়োজন। অন্তত আগে নিজে বাঁচুন এরপর ব্যবসার চিন্তা করুন।

এর আগে রোববার দুপুরে নগর ভবন থেকে ২৫টি ঝুঁকিপূর্ণ ভবনের তালিকা করা হয়।

সিলেট সিটি করপোরেশন কর্তৃক ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত ভবনগুলো হচ্ছে- জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের উত্তর পাশের কালেক্টরেট ভবন-৩, জেলরোডস্থ সমবায় ব্যাংক ভবন, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার সাবেক কার্যালয় ভবন, সুরমা মার্কেট, বন্দরবাজার সিটি সুপার মার্কেট, জিন্দাবাজারের মিতালী ম্যানশন, লন্ডন ম্যানশন, দরগাগেটের হোটেল আজমীর, বন্দরবাজারের মধুবন সুপার মার্কেট, টিলাগড় কালাশীলের মান্নান ভিউ, শেখঘাট শুভেচ্ছা-২২৬ নম্বর ভবন, যতরপুরের নবপুষ্প ২৬/এ বাসা, চৌকিদেখির ৫১/৩ সরকার ভবন, জিন্দাবাজারের রাজাম্যানশন, পুরানলেনের ৪/এ কিবরিয়া লজ, খারপাড়ার মিতালী-৭৪, মির্জাজাঙ্গাল মেঘনা এ-৩৯/২, পাঠানটুলা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, উত্তর বাগবাড়ির একতা ৩৭৭/৭ ওয়ারিছ মঞ্জিল, একই এলাকার একতা ৩৭৭/৮ হোসেইন মঞ্জিল, একতা-৩৭৭/৯ শাহনাজ রিয়াজ ভিলা, বনকলাপাড়া নূরানী-১৪, ধোপাদিঘীর দক্ষিণ পাড়ের পৌরবিপণি মার্কেট ও ধোপাদিঘীরপাড়ের পৌর শপিং সেন্টার।