প্রবাসে দেশীয় রাজনীতির সার্থকতা

সময়ের ডাক : প্রবাসীরা দেশের বাইরে অবস্থান করলেও তাদের চিন্তা-চেতনা ও ভাবনায় সব সময়ই বাংলাদেশ- প্রিয় মাতৃভূমি। প্রবাসীরা দেশের কল্যাণে যেমনভাবে উদ্বেলিত হন, আনন্দিত হন, গর্ববোধ করেন- তেমনি কোনো দু:সংবাদ শুনলে, দুর্দশা দেখলে অত্যন্ত দুঃখ পান, ব্যথিত হন। বলা যায়- প্রবাসীদের হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হয়।

অনেকে আবার দেশকে ভালোবেসে দেশের অগ্রযাত্রায় অবদান রাখার অভিপ্রায়ে সুদূর প্রবাসে দেশীয় রাজনীতির চর্চা করে থাকেন।  সেটা তার  মৌলিক অধিকার। কিন্তু কিছু লোক প্রবাসে দেশের রাজনীতি চর্চা পছন্দ করেন না এবং এ ব্যাপারে বিরূপ মন্তব্যও করে থাকেন। প্রবাসে দেশীয় রাজনীতির চর্চা পছন্দ না করা তাদের এখতিয়ার, সেটা তারা করতেই পারেন। কিন্তু বিরূপ বা বাজে মন্তব্য করার কোনো অবকাশ আছে বলে মনে করি না।

অপরদিকে, রাজনীতির সঙ্গে যারা জড়িত তাদেরকে বাস্তববাদী হতে হবে। সাদাকে সাদা এবং কালোকে কালো বলতে হবে। তারা নিজের পছন্দের দলকে সমর্থন করবেন, এটাই স্বাভাবিক। তবে অন্ধভাবে সমর্থন করাটা মোটেই কাম্য নয়। অনেক ক্ষেত্রে তা অজ্ঞতার পরিচয় বহন করে।

ইদানিং কিছু সংখ্যক লোক রাজনীতিকে কলুষিত করছেন এবং রাজনীতির পরিভাষায় কথা বলছেন না। এটি দু:খজনক। তারা ইচ্ছাকৃতভাবে রেডিও-টেলিভিশনসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহার করে ভুল এবং মিথ্যা তথ্য উপস্থাপন করছেন। একই সঙ্গে তারা সুকৌশলে ইতিহাস বিকৃত করে চলেছেন অবিরাম।

এসব লোক অনুধাবন করতে ব্যর্থ হচ্ছেন যে- তাদের এমন গর্হিত  কাজ নতুন প্রজন্মকে বিপথগামী করছে, যা মোটেই কাম্য নয়। এই বিভ্রান্তিমূলক তথ্যগুলো সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার ফলে সাধারণ মানুষও বিভ্রান্ত হচ্ছেন। একই সঙ্গে সচেতন মানুষের কাছে তাদের ভাবমূর্তি বিনষ্ট হচ্ছে।

অভিজ্ঞ মহল মনে করেন, রাজনীতির নামে যারা এমন কার্যকলাপে লিপ্ত- তারা মৌলিক অধিকারসহ গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে। জাতিকে বিভক্তির দিকে ঠেলে দিচ্ছে।

ইতিহাস পর্যালোচনা করলে দেখা যায়- একটি বিভাজিত জাতি অনেক সময় হানাহানিতে জড়িয়ে পড়ে এবং এর প্রভাব অনেকদিন পর্যন্ত সমাজে বিদ্যমান থাকে। এই জাতি কখনো উন্নতির শিখরে উঠতে পারে না। সর্বোপরি স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব হুমকির মুখে পড়ে।

দেশ ও জাতির অগ্রগতির স্বার্থে এবং সার্বিক মানবকল্যাণের লক্ষ্যে অজ্ঞতা ও অন্ধত্ব পরিহার করে স্বচ্ছ এবং জবাবদিহীতামূলক রাজনীতির সংস্কৃতি প্রতিষ্ঠা জন্য কাজ করতে হবে। আর এটাই হবে প্রবাস তথা উন্নত বিশ্বে থেকে দেশীয় রাজনীতি চর্চার সার্থকতা।

লেখক : কলামিস্ট, বিশিষ্ট কমিউনিটি নেতা, সমাজসেবী, রাজনীতিবিদ ও ব্যবসায়ী