প্রচ্ছদ > প্রেস বিজ্ঞপ্তি > সাংবাদিকদের লেখনির মাঝে সুন্দর বাংলাদেশ রচনা হবে: সামাদ ডন

সাংবাদিকদের লেখনির মাঝে সুন্দর বাংলাদেশ রচনা হবে: সামাদ ডন

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

সময়ের ডাক : সিলেটে বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনায় বস্তুু নিষ্ঠ সংবাদের অগ্রপথিক দৈনিক সকালের সময় পত্রিকার ৪র্থ বর্ষপূর্তি ও  ৫ম বর্ষে পদার্পন উপলক্ষে কেক কাটা ও  আলোচনা সভা  অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বুধবার সন্ধ্যায় সিলেট নগরীর পিউলী মার্কেটের দ্বিতীয় তলায় পত্রিকার প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও ৫ম বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে কেক কাটা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য আজিজুস সামাদ ডন।

এ সময় আজিজুস সামাদ ডন বলেন, সাংবাদিকরা দেশ জাতি ও সমাজের জন্য যেমন অতীতে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছেন আগামিতে ও করবেন।

তিনি বলেন, সাংবাদিকরা জাতিকে স্বপ্ন দেখতে শেখায়। এলাকার সমস্যার কথাগুলো মিডিয়ায় প্রকাশ করলে, তার আলোকে কাজ করতে সরকারের সুবিধা হয়। সাংবাদিকদের লেখনির মধ্যে সুন্দর বাংলাদেশ রচনা হবে।

তিনি বলেন আরো বলেন, দেশের সাংবাদিকগণ হচ্ছেন জাতির জাগ্রত বিবেক, সংবাদপত্র হচ্ছে সমাজের দর্পণ, রাষ্ট্রের চতুর্থ স্তম্ভ। সৎ ও নির্ভীক সাংবাদিকতা দেশ ও জাতির জন্য মঙ্গল বয়ে আনে।

এসময় নিরপেক্ষ ও বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের মাধ্যমে সমাজের উন্নয়নে গণমাধ্যমকর্মীদের কাজ করার আহ্বান জানান তিনি।

দৈনিক সকালের সময়ের ব্যুরো প্রধান মবরুর আহমদ সাজু সভাপতিত্বে ও সিলেট প্রতিনিধি সুমন ইসলামের পরিচালনায় কেক কাটা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের সাবেক কোষাধ্যক্ষ ফয়ছল আহমদ মুন্না, দৈনিক শুভ প্রতিদিনের নির্বাহী সম্পাদক সাত্তার আজাদ, বার্তা সম্পাদক সালমান ফরিদ, এসএ টিভির সাবেক ব্যুরো প্রধান আব্দুল আলিম শাহ, সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের সদস্য এমদাদুল হক মান্না, সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক পলিন বখত, জগন্নাথপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক জয়দীপ সূত্রধর বিরেন্দ্র, পাটলি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আঙ্গুর মিয়া, জগন্নাথপুর সেচ্চাসেবক লীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক কালী কুমার রায়, ছাত্রলীগ নেতা সাইফুল আলম টিপু, জগন্নাথপুর সেচ্চাসেবক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কয়েছ মিয়া প্রচার সম্পাদক আক্তার হোসেন সাংবাদিক কামরুজ্জামান রুহিন, শুভপ্রতিদিনের কম্পিউটার ইনচার্জ মিলন ইনচার্জ, নিজস্ব চিত্রগ্রাহক ফারহান আহমদ, কম্পিউটার ইনচার্জ মিলন প্রমুখ।