যুবদল নেতা আবেদুর আসকির কে গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা ও নিঃশর্ত মুক্তি দাবি জানিয়েছেন এম আসকির আলী

সময়ের ডাক:সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার লামাকাজী ইউনিয়ন যুবদলের সভাপতি আবেদুর আসকির গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে নিঃশর্ত মুক্তির দাবি করেছেন নিখোঁজ এম ইলিয়াস আলীর অনুজ স্বেচ্ছাসেবক দল কেন্দ্রীয় সংসদের উপদেষ্টা (সহ-সভাপতি), সিলেট জেলা বিএনপির সাবেক যুগ্ম সম্পাদক এম আসকির আলী ।গণমাধ্যম এবং সামাজিক মাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি উল্লেখ করেন যে,সদ্য বিগত দশ ঘর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ধানের শীষের প্রার্থীর বিজয় কে কারচুপির মাধ্যমে ঠেকাতে না পেরে প্রতিহিংসার বশবর্তী হয়ে, সম্পূর্ণ অন্যায় ভাবে নির্বাচিত চেয়ারম্যান সহ বিএনপির ১৫৩ জন নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা দায়ের করে হয়রানি করা হচ্ছে, গ্রেফতার করা হচ্ছে ।তারই ধারাবাহিকতায় যুবদল নেতা আবেদুর কেসম্পূর্ণ অন্যায়ভাবেগ্রেফতার করা হয়েছে । বিশ্বনাথ আওয়ামী লীগের এই হিংসাত্মক প্রতিহিংসাপরায়ণ ধ্বংসাত্মক রাজনীতির কারণে বারবার বিশ্বনাথের শান্তির পরিবেশ দূষিত হচ্ছে,বিঘ্নিত হচ্ছে,কলুষিত হচ্ছে । বিশ্বনাথ ওসমানী নগর বালাগঞ্জ এই অঞ্চলকে একটাএকটা আতঙ্কের জনপদে পরিণত করা হয়েছে ।যা কিনা গণতান্ত্রিক রাজনীতির জন্য একটা কলঙ্কিত অধ্যায় ।এই অঞ্চলের শান্তিপ্রিয় মানুষ এই ধরনের অগণতান্ত্রিকআচরণে আজ ভীত সন্ত্রস্ত্র, অসহায়, নিগৃহীত, নির্যাতিত, নিপীড়িত । এই অঞ্চলের মানুষ এই শ্বাসরুদ্ধকর পরিস্থিতি থেকে পরিত্রাণ পেতে চায় । তাই আমি আশা করব আওয়ামী লীগের ভাইদের শুভবুদ্ধির উদয় হবে এবং এই ধরনের হিংসাত্মক এবং ধ্বংসাত্মক নির্যাতনের রাজনীতি থেকে সরে আসবেন এবং বিএনপির সাধারণ নেতাকর্মীসহ এই অঞ্চলের সাধারণ মানুষদের জুলুম নির্যাতনের বন্ধ করবেন । হিংসার রাজনীতি কারো জন্যই সুখকর হবে না । অবিলম্বে যুবদল নেতা আবেদুর কে নিঃশর্ত মুক্তি দিন। নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান এমাদ খান সহ বিএনপির ১৫৩ জন নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা অবিলম্বে প্রত্যাহার করুন ।গ্রেফতারকৃত বিএনপি নেতা আব্দুল হাই, যুবদল নেতা সুফিয়ান, যুবদল নেতা আবেদুর, ছাত্রদল নেতা শিমুল সহ সকল রাজবন্দীদের নিঃশর্ত মুক্তি দিন ।

প্রেস বিজ্ঞপ্তি