নাচের মধ্যে নিজের ট্রাউজার খুলে ফেললেন ম্যারাডোনা

স্পোর্টস ডেস্ক:: ফুটবল মাঠের ডিয়েগো ম্যারাডোনা একজন অবিসংবাদিত কিংবদন্তির নাম। তার পায়ের জাদুতে বুঁদ থাকত গোটা ফুটবল বিশ্ব। প্রায় একা হাতে নিজ দেশ আর্জেন্টিনাকে ১৯৮৬ সালের বিশ্বকাপ জিতিয়ে নিজেকে বসিয়েছেন সর্বকালের অন্যতম সেরা ফুটবলারের আসনে।

কিন্তু খেলোয়াড়ি জীবনের বাইরে ব্যক্তি ম্যারাডোনা যেন বরাবরই বিতর্কের অন্য নাম। ফুটবল ক্যারিয়ার চলাকালীনই তার নামে শোনা গেছে ড্রাগ নেয়ার অভিযোগ। পরে যা বেড়েছে বহুগুণে। এর বাইরেও গত কয়েক যুগ ধরেই প্রায় নিয়মিত বিতর্কিত সব খবরের শিরোনাম হয়েছেন ম্যারাডোনা।

তারই ধারাবাহিকতায় এবার নতুন এক বিতর্কে জড়ালেন আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি। নিজের বন্ধুর বাড়িতে গিয়ে মাতাল হয়ে নাচতে গিয়ে ঘটিয়েছেন বিব্রতকর এক কাণ্ড। নাচের মধ্যেই খুলে ফেলেছেন নিজের ট্রাউজার। এ ঘটনার ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

টুইটারে ইগনাশিয়াস বোর নামক এক প্রোফাইল থেকে আপলোড করা হয়েছে ৪৫ সেকেন্ডের ছোট্ট একটি ভিডিও ক্লিপ। ক্যাপশনে তিনি লিখেছেন, ‘আমার নিজেকে মেরে ফেলতে ইচ্ছা করছে। বর্তমানে আর্জেন্টিনায় কী চলছে, তারই একটি নমুনা এই ভিডিও।’

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, মদ খেয়ে মাতাল অবস্থায় এক নারীর সঙ্গে অন্তরঙ্গ অবস্থায় নাচছেন ম্যারাডোনা। কিন্তু খানিক পর নিজেই নিজের ট্রাউজার নামিয়ে ফেলেন। যা বিব্রতকর পরিবেশের সৃষ্টি করে সেই বন্ধুর বাড়িতে।

শুধু তাই নয়, প্রায় দশ সেকেন্ডের বেশি সময় ট্রাউজার নামানোই ছিল ম্যারাডোনার। পরে আবার নিজেই সেটি পরে নেন। এরপর যেন আরও বেশি মাতাল হয়ে পড়েন তিনি। সেই নারীকে জড়িয়ে ধরে চুমু খেতে থাকেন সবার সামনেই। উপায়ন্ত না দেখে সেই নারী নিজ থেকেই সরে যান সেখান থেকে।