নিরীহ বানরগুলোর ওপর এ কেমন নিষ্ঠুরতা!

সময়ের ডাক ডেস্ক :: মাদারীপুর পৌরসভার চরমুগুরিয়া এলাকায় ১১টি বিলুপ্ত প্রায় প্রজাতির বানরকে বিষ খাইয়ে মেরে ফেলেছে দুর্বৃত্তরা। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার (৫ মে) বিকেলে। এই ঘটনায় ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী।

স্থানীয়রা জানান, মাদারীপুর শহরের এই বানরগুলো শত বছর ধরে চরমুগরিয়া বন্দরের মানুষের পাশাপাশি বসবাস করে আসছে। মঙ্গলবার বিকালে দুর্বৃত্তরা কয়েকটি বানরকে মেরে ফেলার উদ্দেশ্যে বিষ খাইয়ে দেয়। এতে ১০টি বানর মারা গেছে। এছাড়াও একটি বানর অর্ধমৃত অবস্থায় পড়ে আছে। মৃত ১০টি বানরকে স্থানীয়রা মাটি চাপা দিয়েছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যক্তি জানান, স্থানীয় একটি বেকারী কারখানার মালিক বিষ প্রয়োগ করে বানরগুলোকে মেরে ফেলেছে। তারা আরও জানান, খাদ্য সংকটের কারণে বানরগুলো বাসাবাড়িতে বিভিন্ন সময় হানা দিত। তবে একারনে কেউ কখনও বানর মারেনি।

স্থানীয় সূত্র জানায়, আড়িয়াল খাঁ নদীবেষ্টিত মাদারীপুরের চরমুগরিয়া অঞ্চল বনজ ও ফলদ গাছে পূর্ণ ছিল। মুক্তিযুদ্ধের আগে এ বনে ১০ হাজারের মতো বানর ছিল। তখন জঙ্গল ও শত শত গাছ থাকায় বানরগুলোর বিচারণ ছিল চরমুগরিয়ার এলাকাজুড়ে। জেলা বন বিভাগের তথ্য মতে, চরমুগরিয়ায় এখনও আড়াই হাজারের মতো বানর আছে।

মাদারীপুর উন্নয়ন সংগ্রম পরিষদের আহবায়ক মাসুদ পারভেজ বলেন, এটা খুবই অমানবিক। বানরগুলো মাদারীপুরের ঐতিহ্য। শত বছর ধরে এই বানরগুলো মানুষের প্রতিবেশীর মতই বসবাস করে আসছে। কেউ কখনওই বানর মারেনি। কিছু অমানুষ এই বানরগুলোকে মেরে ফেলেছে। আমরা এর বিচার চাই।

এ ব্যাপারে জেলা বন বিভাগের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তাপস কুমার গুপ্তকে একাধিক বার ফোন দিলেও ফোন রিসিভ করেননি।

উল্লেখ্য, বানরের জন্য মাদারীপুর সদর উপজেলার কুমার নদের তীরে নয়াচর এলাকায় ১৮ একর জায়গাজুড়ে ইকোপার্ক নির্মাণ করা হলেও বানরগুলোকে আজও সেখানে নেওয়া সম্ভব হয়নি।