বিয়ানীবাজারে নিহত তরুণের দাফন সম্পন্ন

সময়ের ডাক:বিয়ানীবাজারের মোল্লাপুর ইউনিয়নের পশ্চিম নিদনপুর এলাকায় আপন চাচাতো ভাইয়ের হাতে খুন হওয়া তরুণ আব্দুল কাইয়ুমের দাফন সম্পন্ন হয়েছে।

শুক্রবার (১ মে) বাদ আসর পশ্চিম নিদনপুর জামে মসজিদ প্রাঙ্গণে জানাজার নামাজ শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে সমাহিত করা হয়।

এর আগে বিকেল ৪টায় ময়নাতদন্ত শেষে সিলেট এমএজি ওসমানী হাসপাতাল থেকে বাড়িতে আসে আব্দুল কাইয়ুমের মরদেহ। এসময় তার মা, ভাই-বোনসহ স্বজনদের আর্তনাদে এক হৃদয়বিদারক দৃশ্যের অবতারণার সৃষ্টি হয়।

নিহত তরুণ আব্দুল কাইয়ুম (১৮) মোল্লাপুর ইউনিয়নের পশ্চিম নিদনপুর এলাকার মৃত সবুল আলীর ছোট ছেলে। সে মোল্লাপুর ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার দুপুরে জমি ক্রয়-বিক্রয়ের টাকা লেনদেনের জের ধরে আব্দুল কাইয়ুমের পরিবারের সাথে একই এলাকার ফরমান আলীর ছেলে তার চাচাতো ভাই স্বপন আহমদ পরিবারের মধ্যে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। এক পর্যায়ে আপন চাচাতো ভাই স্বপন আহমদের হাতে থাকা জিআই পাইপের আঘাতে আব্দুল কাইয়ুম আহত হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। এ ঘটনায় কাইয়ুমের আপন ভাই তাজ উদ্দিন ও নাজিম উদ্দিন আহত হয়েছেন।

পরে স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে বিয়ানীবাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রেরণ করেন। তবে আহত আব্দুল কাইয়ুমের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী হাসপাতালে প্রেরণ করা হয় এবং শুক্রবার ভোরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মারা যায়। স্বপন আহমদ (২২) একই এলাকার ফরমান আলীর ছেলে।

এ ব্যাপারে বিয়ানীবাজার থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. জাহিদুল হক বলেন, সংঘটিত ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। নিহতের পরিবার দাফন কাজে ব্যস্ত থাকায় এখনো বিয়ানীবাজার থানায় মামলা দায়ের হয়নি। তবে আমরা ইতোমধ্যে অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করতে অভিযান চালিয়েছে। শীঘ্রই তাদেরকে গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে।