প্রচ্ছদ > আন্তর্জাতিক > চীনকে দায়ী করতে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থার ওপর চাপ

চীনকে দায়ী করতে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থার ওপর চাপ

আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:করোনা ভাইরাসের সঙ্গে চীনের রাষ্ট্র পরিচালিত ল্যাবরেটরিকে যুক্ত করার জন্য মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থাগুলো চাপে রয়েছে। এই ভাইরাসের উৎস সম্পর্কে তথ্যপ্রমাণ চেয়েছেন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসনের সিনিয়র কর্মকর্তারা। নিউ ইয়র্ক টাইমসে প্রকাশিত এক রিপোর্টে এমন কথা বলা হয়েছে বলে খবর দিয়েছে লন্ডনের অনলাইন গার্ডিয়ান। এতে বলা হয়েছে, চীনের রাষ্ট্র পরিচালিত ল্যাবরেটরি থেকে করোনা ভাইরাসের উৎপত্তি এ বিষয়ে তথ্যপ্রমাণ দিতে গোয়েন্দা এজেন্সিগুলোর ওপর চাপ প্রয়োগ করা হচ্ছে। গোয়েন্দা বিশ্লেষকরা আশঙ্কা করছেন, চীন কি এই সঙ্কট ধামাচাপা দিয়েছে কিনা অথবা ভাইরাসটি তাদের ল্যাবরেটরিতে ‘জেনারেট’ করা হয়েছে কিনা তা নিয়ে ব্লেম গেমে বিষয়টি প্রপাগান্ডা হিসেবে চালাতে চাইছেন ডনাল্ড ট্রাম্প। তবে তার সন্দেহের কোনোটিই এখন পর্যন্ত প্রমাণিত হয় নি। জাতীয় গোয়েন্দা বিষয়ক পরিচালকের অফিস থেকে বৃহস্পতিবার একটি বিবৃতি দেয়া হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, এই ভাইরাস মানুষের সৃষ্টি নয় বা জেনেটিক্যালি মডিফাই করা নয়। তারপরও এতে বলা হয়,কর্মকর্তারা এখনও পরীক্ষা করে দেখছেন সংক্রমিত কোনো প্রাণির সঙ্গে এই ভাইরাসের যোগসূত্র আছে কিনা অথবা চীনের কোনো ল্যাবরেটরি থেকে দুর্ঘটনাবশত: তা ছড়িয়েছে কিনা। চীনকে দায়ী করতে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থাগুলোকে যারা চাপ দিয়ে যাচ্ছেন রিপোর্টে বলা হয়েছে তার মধ্যে রয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও, জাতীয় নিরাপত্তা বিষয়ক উপ-উপদেষ্টা ম্যাথিউ পোটিঙ্গার ও ন্যাশনাল ইন্টেলিজেন্সের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক রিচার্ড গ্রেনেল। টিভি সাক্ষাতকারে মাইক পম্পেও বহুবার বলেছেন, এই ভাইরাস নিয়ে তথ্য গোপন করেছে চীন। বিশ^ স্বাস্থ্য সংস্থা থেকে মূল তথ্য লুকানো হয়েছে। তিনি ইঙ্গিত দেন করোনা ভাইরাসের উৎপত্তি চীনের ল্যাবরেটরি থেকে। কিন্তু গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর ওপর চাপ দেয়ার যে তথ্য প্রকাশ পাচ্ছে, তা ওই জাতীয় মন্তব্যেরই প্রতিনিধিত্ব করে। বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, এমন বিষয় আন্তর্জাতিক এই বিপর্যয়কে নিয়ে যাবে জীবাণুযুদ্ধে।