প্রচ্ছদ > জাতীয় > স্যার ফজলে হাসান আবেদকে শেষ শ্রদ্ধা জানিয়ে কাঁদলেন ড. ইউনূস

স্যার ফজলে হাসান আবেদকে শেষ শ্রদ্ধা জানিয়ে কাঁদলেন ড. ইউনূস

জাতীয়

সময়ের ডাক ডেস্ক:ব্র্যাকের প্রতিষ্ঠাতা সদ্যপ্রয়াত স্যার ফজলে হাসান আবেদ সব বিষয়েই মনোযোগী ছিলেন বলে মন্তব্য করেছেন নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. মোহাম্মদ ইউনূস।

তিনি বলেন, এমন কোনো বিষয় ছিল না যেখানে তিনি মনযোগ দেননি। মানুষের জীবন পরিবর্তনে যত কিছু লাগে, তিনি তার সবকিছু নিয়েই কাজ করেছেন। তার অবদান সর্বব্যাপী।

রোববার (২২ ডিসেম্বর) রাজধানীর আর্মি স্টেডিয়ামে স্যার ফজলে হাসান আবেদের মরদেহে শ্রদ্ধা জানাতে এসে অশ্রুসিক্ত হয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

ড. ইউনূস বলেন, ফজলে হাসান আবেদ ইতিহাসের সঙ্গে, মানুষের সঙ্গে অঙ্গাঅঙ্গিভাবে জড়িত। তিনি যে কেবল একেকটি বিষয় ছুঁয়ে গেছেন, তা নয়; তিনি প্রতিটি বিষয়ে গভীরেও গেছেন। তিনি কেবল প্রতিষ্ঠান তৈরি করেননি, প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা সিস্টেমও তৈরি করে গেছেন। তার বিদায়ে আমরা মর্মাহত। তার চলে যাওয়া একটি বিরাট শূন্যতা। এ শূন্যতা সামাল দেওয়ার জন্য সবাইকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে।

ফজলে হাসান আবেদের আদর্শ ও পথনির্দেশনা তরুণদের অনুসরণ করার আহ্বান জানিয়ে নোবেলজয়ী এই অর্থনীতিবিদ বলেন, তিনি যে মানসিকতা নিয়ে কাজ করেছেন, তার যে স্বপ্নের গভীরতা, তা বাস্তবায়নে তরুণ প্রজন্মকে কাজ করতে হবে। তিনি মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনে কাজ করেছেন। সিস্টেম কিভাবে গড়ে তুলতে হয়, তা দেখিয়েছেন। তার জীবন পুরোটাই একটি শিক্ষা। তার জীবন থেকে তরুণরা শিক্ষা নেবেন, আর সেই শিক্ষাকে কাজে লাগিয়ে নতুন উদ্যোগ নিয়ে এগিয়ে যাবেন। তবেই আবেদের স্বপ্ন পূরণ হবে।

ড. ইউনূস আরও বলেন, এই দেশের মানুষের সঙ্গে আবেদ ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে আছে। হিসাবরক্ষক হলেও হেন বিষয় নেই, যাতে তিনি যুক্ত ছিলেন না। তার এই চলে যাওয়ায় আমি মর্মাহত, এ এক বিরাট শূন্যতা। তবে তার প্রয়াণ মানেই চলে যাওয়া না, তিনি আমাদের সবার মাছে জাগরুক থাকবেন।

রোববার সকাল ১০টার পর স্যার আবেদের মরদেহ রাজধানীর আর্মি স্টেডিয়ামে নেওয়া হয় সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা জানানোর জন্য। শুরুতেই মরদেহে শ্রদ্ধা জানানো হয় রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

পরে একে একে জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী, ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া, প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী পরিষদ, নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. মোহাম্মদ ইউনূসসহ বিভিন্ন ব্যক্তি, দল ও সংগঠন স্যার ফজলে হাসান আবেদের মরদেহে শ্রদ্ধা জানায়।

শ্রদ্ধা জানানো শেষে আর্মি স্টেডিয়ামেই স্যার আবেদের জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। জানাজা শেষে বনানী কবরস্থানে স্ত্রী আয়েশা আবেদের পাশে সমাহিত করা হবে তার মরদেহ।

প্রসঙ্গত, ফজলে হাসান আবেদ ৮৩ বছর বয়সে গত শুক্রবার রাত ৮টা ২৮ মিনিটে রাজধানীর একটি হাসপাতালে মারা যান। তিনি মস্তিষ্কে টিউমারে আক্রান্ত হয়ে ২৮ নভেম্বর থেকে ওই হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন।