প্রচ্ছদ > শীর্ষ সংবাদ > নুরের উপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধনেও হামলা, আহত ১০

নুরের উপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধনেও হামলা, আহত ১০

শীর্ষ সংবাদ সিলেট প্রতিক্ষণ সিলেট শীর্ষ

সময়ের ডাক :ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুরের উপর হামলার প্রতিবাদে সিলেটে ছাত্র অধিকার পরিষদের মানববন্ধনে ‘জয় বাংলা’ স্লোগান দিয়ে হামলা চালানো হয়েছে। এতে ছাত্র অধিকার পরিষদের ১০ জন আহত হয়েছেন।

বুধবার (১৮ ডিসেম্বর) দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, মঙ্গলবার (১৭ ডিসেম্বর) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের সামনে ভারতের এনআরসির প্রতিবাদ সমাবেশে ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুর ও ছাত্র অধিকার পরিষদের নেতাকর্মীদের উপর হামলা চালায় মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ নামে একটি সংগঠন। এই হামলার প্রতিবাদে আজ বুধবার সিলেটে মানববন্ধন আয়োজন করে ছাত্র অধিকার পরিষদ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুপুর ১২ টার দিকে সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে জড়ো হতে থাকেন ছাত্র অধিকার পরিষদের নেতাকর্মীরা। দুপুর সাড়ে ১২ দিকে জয় বাংলা স্লোগানে তাদের উপর লাঠিসোটা নিয়ে আরেকদল এসে হামলা চালায়। এসময় হামলাকারীরা মানববন্ধনের মাইক ও রিকশা ভাঙচুর করে। পরে ‘এই সিলেটের মাটি ছাত্রলীগের ঘাটি’ ও ‘ জয় বাংলা’ স্লোগান দিয়ে নগরের চৌহাট্টা এলাকা দিয়ে চলে যায় তারা।

এদিকে হামলায় আহত হয়েছেন ছাত্র অধিকার পরিষদের ১০ নেতাকর্মী। তাদের মধ্যে আমিনুল হক রুবেল নামে একজন গুরুতর আহত হয়েছে। তাকে নগরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এই হামলার প্রতিবাদে তাৎক্ষনিক প্রতিবাদ মিছিল করেছে ছাত্র অধিকার পরিষদ। মিছিলটি নগরের চৌহাট্টা এলাকা থেকে আম্বরখানায় গিয়ে শেষ হয়।

এ বিষয়ে ছাত্র অধিকার পরিষদ সিলেট বিভাগীয় কমিটির যুগ্ম আহবায়ক নাজমুস সাকিব বলেন, ডাকসুর ভিপির উপর হামলা ও ভারতের এনআরসির প্রতিবাদে আজ দুপুর ১২ টায় ছাত্র অধিকার পরিষদের মানববন্ধন শহীদ মিনারে প্রাঙ্গণে হওয়ার কথা ছিলো। তবে সাড়ে ১২ টার দিকে আমরা জড়ো হতো থাকলে হঠাৎ জয় বাংলা স্লোগান দিয়ে ছাত্রলীগের কর্মীরা ষ্ট্যাম্প লাঠি নিয়ে আমাদের উপর হামলা চালায়। এতে আমাদের ১০ জন আহত হয়েছেন।

এ ব্যাপারে সিলেট কোতোয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ সেলিম মিঞা বলেন, এ ব্যাপারে খবর পেয়েছি। এটা ঠিক হামলা না। ১০/১২ জন রাস্তার পাশে ব্যানার নিয়ে দাঁড়িয়ে ছিল। তখন অতর্কিতভাবে আরও কয়েকজন এসে তাদের সরিয়ে দেয়। এসময় হট্টগোল হয়েছে। হট্টগোল শুনে চৌহাট্টায় থাকা পুলিশ সদস্যরা গিয়ে কাউকে পায়নি।