প্রচ্ছদ > সারাদেশ > জুতা পায়ে শহীদ বেদিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ অধ্যক্ষের!

জুতা পায়ে শহীদ বেদিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ অধ্যক্ষের!

সারাদেশ

 

 

সময়ের ডাক ডেস্ক:কুড়িগ্রামের উলিপুর সরকারি ডিগ্রি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আবু তাহের বিজয় দিবসের শ্রদ্ধাঞ্জলি জানাতে ক্যাম্পাসের শহীদ মিনার বেদিতে জুতা পায়ে উঠে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেছেন।

সোমবার সকালে জুতা পায়ে শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন অধ্যক্ষ।

এ ঘটনার ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে বিভিন্ন মহলে তীব্র সমালোচনার ঝড় উঠে।

এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ক্ষুব্ধ জনতা ওই দিন দুপুরে অধ্যক্ষের উপর হামলা ও তার অফিস কক্ষে ভাংচুর চালায়। হামলায় আহত অধ্যক্ষ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

জানা গেছে, উলিপুর সরকারি ডিগ্রি কলেজে বিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে সোমবার সকালে শহীদ মিনারের বেদিতে কলেজের পক্ষ থেকে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আবু তাহেরকে জুতা পায়ে বেদিতে উঠে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে ফটোসেশন করতেও দেখা যায়।

বেদিতে জুতা পায়ে শ্রদ্ধা নিবেদনের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে বিভিন্ন মহলে তীব্র সমালোচনার ঝড় উঠে।

এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে ওই দিন দুপুরে একদল জনতা কলেজে ঢুকে অধ্যক্ষকে মারধর করে তার অফিস কক্ষ ভাংচুর করেন।

কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আবু তাহেরের মোবাইল ফোনে বার বার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তার স্ত্রী ফোন রিসিভ করে জানান, উনি অসুস্থ এখন কথা বলতে পারবেন না।

সাবেক উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার এমডি ফয়জার রহমান জানান, বিজয়ের এই দিনে জুতা পায়ে শহীদ মিনারে উঠে শহীদদের অপমান করা হয়েছে। এটা অত্যন্ত দুঃখজনক, আমরা এর তীব্র নিন্দা জানাই এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।

উলিপুর থানার ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, অধ্যক্ষ শহীদ বেদিতে জুতা পায়ে উঠার ঘটনাকে কেন্দ্র করে তাকে মারপিট করার কথা শুনেছি। এ ঘটনায় তিনি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। আমরা ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। কলেজের পক্ষ থেকে অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আবদুল কাদের বলেন, জুতা পায়ে শহীদ বেদিতে উঠা দুঃখজনক। বিষয়টি জেলা প্রশাসক মহোদয়কে অবগত করা হয়েছে।