প্রচ্ছদ > সিলেট প্রতিক্ষণ > প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানিয়ে আওয়ামী লীগের মিছিল

প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানিয়ে আওয়ামী লীগের মিছিল

সিলেট প্রতিক্ষণ সিলেট শীর্ষ

সময়ের ডাক:- প্রবাসী অধ্যূষিত সিলেটের বিশ্বনাথকে পৌরসভায় উন্নীত করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানিয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব পংকি খানের নেতৃত্বে উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের ব্যানারে আজ বুধবার (২৩ অক্টোবর) বিকেলে উপজেলা শহরে বিশাল আনন্দ মিছিল ও সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
উপজেলা শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ ‘বাসিয়া সেতুর’ ওপর সভায় মিলিত হয়। উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব মো. পংকি খানের সভাপতিত্বে ও যুগ্ম-সম্পাদক মকদ্দছ আলীর পরিচালনায় আনন্দ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব শফিকুর রহমান চৌধুরী।
বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বিশ্বনাথ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এস.এম.নুনু মিয়া, রামপাশা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ আলমগীর, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল আজিজ সুমন।।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে শফিকুর রহমান চৌধুরী বলেছেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্বনাথ উপজেলাকে পৌরসভায় উন্নীত করে নিজের দেওয়া কথা রেখেছেন। এজন্য দেশ-বিদেশে থাকা সর্বস্তরের বিশ্বনাথবাসীর পক্ষ থেকে তাঁকে আন্তরিক অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। জননেত্রী শেখ হাসিনা’র নেতৃত্বে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। আর দূর্নীতিবাজ ও ষড়যন্ত্রকারীদের সকল ষড়যন্ত্র ধ্বংস করে প্রধানমন্ত্রীর যোগ্য নেতৃত্বে তাই আজ বাংলাদেশ বিশ্বের বুকে মাথা উচুঁ করে দাঁড়িয়েছে। এসেছে বাঙালীদের অর্থনৈতিক মুক্তি।
আনন্দ মিছিল ও পথসভায় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি হাজী ইরন মিয়া, যুগ্ম সম্পাদক শাহ ফয়েজ আহমদ সেবুল, ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক আবদুল মতিন, দপ্তর সম্পাদক সাহিদুল ইসলাম সাহিদ, প্রচার সম্পাদক নিখিল পাল, বন ও পরিবেশ সম্পাদক রুনু কান্ত দে, শ্রম সম্পাদক সাধন চন্দ্র দাশ, সাংস্কৃতিক সম্পাদক শামীম আহমদ, সহ দপ্তর সম্পাদক নুরুল হক, সহ প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন, কার্যনির্বাহী সদস্য এমদাদ হোসেন, এনামুল হক এনাম মেম্বার, রফিক হাসান মেম্বার, উপদেস্টা মন্ডলীর সদস্য ময়না মিয়া, বিভিন্ন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের মধ্যে বিশ্বনাথ সদরের সাধারণ সম্পাদক মহব্বত আলী জাহান, রামপাশার সভাপতি নজরুল ইসলাম, দৌলতপুরের সভাপতি হাজী আরিফ উল্লাহ সিতাব, সাধারণ সম্পাদক আবদুল আজিজ, দেওকলসের সভাপতি আবদুল মোমিন, সাধারণ সম্পাদক দিলোয়ার হোসেন রুপন, অলংকারীর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হীরা মিয়া, সাধারণ সম্পাদক তফজ্জুল আলী, দশঘরের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি তজম্মুল আলী, সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াস মিয়া, খাজাঞ্চীর যুগ্ম সম্পাদক মিজাজুল হোসেন, লামাকাজীর দপ্তর সম্পাদক আবু-বক্কর মোঃ ফয়ছল, উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি ছুরাব আলী, সহ সভাপতি সাহাব উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক আবদুল হান্নান বদরুল, উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি হাজী আমির আলী, কার্যকরী সভাপতি ফজর আলী মেম্বার, সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিব, সাবেক কার্যকরী সভাপতি শংকর দাশ শংকু, মাইক্রোবাস শ্রমিক লীগের সভাপতি মুহিবুর রহমান গোলাপ, যুবলীগ নেতা আবদুল হক, আবদুর রুপ, গিয়াস উদ্দিন, সায়েদ আহমদ, সাফায়েত খান, মুহিবুর রহমান সুইট, মোহন মিয়া, সাদ নূর, রাজু আহমদ খান, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি বদরুল আলম, যুগ্ম সম্পাদক আতিকুর রহমান আতিক, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা রফিক মিয়া, রফিক আলী, সিজিল মিয়া, মাহফুজুর রহমান দুলু, সুহেল খান, মুহিত চৌধুরী, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শীতল বৈদ্য, সহ সভাপতি নজরুল ইসলাম প্রিন্স, যুগ্ম সম্পাদক শাহ বোরহান আহমদ রুবেল, সাংগঠনিক সম্পাদক জুবায়ের আহমদ জয়, ছাত্রলীগ নেতা সায়হাম শিকদার, আরব শাহ, আবদুল মুকিত সুমন, কামরুল ইসলাম, সিরাজুল ইসলাম রুকন, মিয়াদ আহমদ, আশরাফ উদ্দিন, হিমেল আহমদ, জাকির হোসেন, কবির মিয়া প্রমুখসহ আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ-সংগঠন এবং বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার ব্যাক্তিবর্গ।