প্রচ্ছদ > জাতীয় > ‘জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় দুনিয়ার সমর্থন চায় বাংলাদেশ’

‘জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় দুনিয়ার সমর্থন চায় বাংলাদেশ’

জাতীয়

সময়ের ডাক ডেস্ক:পররাষ্ট্রমন্ত্রী কে এম আবদুল মোমেন বলেছেন, জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবেলা হচ্ছে উন্নয়নের সঙ্গে সম্পৃক্ত একটি ইস্যু। বাংলাদেশ এর সবচেয়ে বড় ভুক্তভোগী। বাংলাদেশ এই পরিবর্তন মোকাবেলায় নানা পন্থা, নানা পদক্ষেপ নিয়েছে। এতে বাংলাদেশ দুনিয়ার কাছে সমর্থন চায়। জলবায়ু পরিবর্তনের ওপর দু’দিনের এক বিশেষ আন্তর্জাতিক সভা উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। আজ দুপুরে পররাষ্ট্র এবং পরিবেশ বন ও জলবায়ূ মন্ত্রণালয় যৌথভাবে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।

দু’দিন ব্যাপী বিশেষ এ আন্তর্জাতিক সভার আয়োজন করছে পরিবেশ বন ও জলবায়ু মন্ত্রণালয়। আগামীকাল মঙ্গলবার রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে এ সভা শুরু হবে।
ওই সভায় সভাপতিত্ব করবেন গ্লোবাল কমিশন অন এডাপ্টেশনের (জিসিএ) চেয়ারম্যান ও জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব বান কি মুন। বুধবার সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সভায় যোগ দিতে আজই ঢাকায় পৌঁছবেন বান কি মুন। দু’দিনের এ সভা শেষে কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনেও যাবেন তিনি।

এর আগে গতকাল পরিবেশ বন ও জলবায়ু মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছিলেন, আগামী সেপ্টেম্বরে নিউইয়র্ক জাতিসংঘ সদরদপ্তরে জাতিসংঘ মহাসচিবের উদ্যোগে একটি বিশেষ ক্লাইমেন্ট সামিট অনুষ্ঠিত হবে। এই সামিটকে সামনে রেখে ঢাকায় দুইদিনের জিসিএ-এর এই সভা আয়োজন করা হচ্ছে।

পরিবেশ বন ও জলবায়ু মন্ত্রী আরও জানিয়েছিলেন, সভায় জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব মোকাবেলায় অভিযোজন সংশ্লিষ্ট সক্ষমতা ও অবদান কীভাবে বাড়ানো যায়, সে বিষয়ে আলোচনা হবে। এই সভায় চূড়ান্ত হওয়া অভিযোজন সংক্রান্ত প্রতিবেদন বিশেষ ক্লাইমেট সামিটে উত্থাপন করা হবে। যে কারণে এই সভা জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে সবচেয়ে ঝুঁকিতে থাকা বাংলাদেশের অভিযোজন প্রক্রিয়ায় বিশেষ ভূমিকা রাখবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

গ্লোবাল ক্লাইমেট ইনিশিয়েটিভ থেকে যুক্তরাষ্ট্র নিজেকে প্রত্যাহার করে নিয়েছে এ সংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে আজকের সংবাদ সম্মেলনে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবদুল মোমেন বলেন, আমরা যা করছি আমাদের জন্য করছি। আমরা আমাদের বেঁচে থাকার স্বার্থে এটা করে যাবো।

সংবাদ সম্মেলনে উভয় মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বশীল কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।