প্রচ্ছদ > শীর্ষ সংবাদ > সিলেটে ‘যুবলীগ’ প্রার্থীরা সরব: বদলে যাচ্ছে হিসেব

সিলেটে ‘যুবলীগ’ প্রার্থীরা সরব: বদলে যাচ্ছে হিসেব

শীর্ষ সংবাদ সিলেট প্রতিক্ষণ

সময়ের ডাক ডেস্ক : সম্মেলনকে সামনে রেখে সরব হয়ে উঠেছে মহানগর যুবলীগ। এর ফলে দীর্ঘ ৫ বছর আহবায়ক কমিটিতে বন্দী থাকা মহানগর যুবলীগ নতুন করে সরব হচ্ছে। ইতোমধ্যে সংগঠনের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বর্ধিত সভায় কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে নেতাকর্মীদের উপস্থিতি ছিল বেশ লক্ষ্যনীয়। এর ফলে দলীয় কর্মীদের মধ্যে উৎফুল্লুতা লক্ষ্য করা গেছে।

ওয়ার্ড পর্যায়ের কর্মীরা বলছেন-একটি ক্রাইসিস প্রিয়ডে ছিল মহানগর যুবলীগ। বর্তমানে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের নির্দেশে মহানগরের সম্মেলন অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে সেই রাজনৈতিক ক্রাইসিস কেটে যাবে।

এদিকে সম্মেলনকে কেন্দ্র করে পদ-পদবী বাগিয়ে নিতে তৎপর হয়ে উঠেছেন নেতাকর্মীরা। গণ সংযোগের পাশাপাশি সবাই এখন কেন্দ্রমুখী তৎপরতা নিয়ে ব্যস্থ।

দীর্ঘদিন পর দলীয় কর্মীদের খোঁজ নিতেও শুরু করেছেন অনেকেই। কেন্দ্রীয় নির্দেশনার পর চলতি মাসের ২৯ জুলাই মহানগর কমিটির সম্মেলন। সম্মেলনকে সামনে রেখে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের গুরুত্বপূর্ণ পদে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীর সংখ্যাও বেড়েছে অনেক। এ সংখ্যা সম্মেলনের ঠিক আগ মুহুর্তে অঅরো বাড়তে পারে বলে মনে করছেন অনেকেই।দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে কথা বলে এখন পর্যন্ত পাওয়া তথ্য অনুযায়ী সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় যাদের নাম উঠে এসেছে, তাঁরা হলেন- বর্তমান আহবায়ক আলম খান মুক্তি, মহানগর যুবলীগের আহবায়ক কমিটির সিনিয়র সদস্য শান্ত দেব।

সাধারণ সম্পাদক পদে যাদের নাম উঠে এসেছে তারা হলেন- যুগ্ম আহবায়ক মুশফি জায়গীরদার,বর্তমান যুগ্ম আহবায়ক সেলিম আহমদ সেলিম, আহবায়ক কমিটির সদস্য আব্দুল লতিপ রিপন ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এম রায়হান চৌধুরী।

এদিকে, কেন্দ্রীয় নির্দেশের পর সিলেট মহানগর যুবলীগের কার্যক্রমে গতি বৃদ্ধি পেয়েছে। ইতোমধ্যে মহানগরের কয়েকটি ওয়ার্ডে নতুন করে কমিটি গঠন করা হয়েছে।২০১৪ সালে তিন মাসের জন্য গঠিত হওয়া সিলেট মহানগর যুবলীগের আহবায়ক কমিটি ৫ বছর কাটিয়ে দিলেও সম্মেলন আয়োজন করতে পারেনি।
এ অবস্থায় গেলো বছরে সিলেট মহানগর যুবলীগের আহবায়ক কমিটিকে শেষ সুযোগ দিয়েছিল কেন্দ্রীয় সংসদ। সেই নির্দেশে ওই বছরের ২৫ থেকে ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে সম্মেলন আয়োজনের নির্দেশ দেওয়া হয়। এই নির্দেশও রাখতে পারেনি সিলেট মহানগর যুবলীগ।সব মিলিয়ে এখন সম্মেলনমুখী বর্তমান মহানগর কমিটি। বিগত জড়তা কাটিয়ে উঠার পাশাপাশি সংগঠনের বিভিন্ন কর্মীরাও এখন বেশ সরব। এর ফলে উৎসাহ, উদ্দীপনা বিরাজ করছে সকল শ্রেণীর কর্মীদের মধ্যে।

২০১৪ সালের ৭ জুলাই আলম খান মুক্তিকে আহ্বায়ক এবং চারজনকে যুগ্ম আহবায়ক করে ৬১ সদস্যের মহানগর যুবলীগের কমিটি অনুমোদন দেয় সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটি। এর মেয়াদ বেঁধে দেয়া হয়েছিল ৯০ দিন। এ সময়ের মধ্যে সকল ওয়ার্ডের সম্মেলন করে কমিটি পূর্ণাঙ্গ করার কথা ছিল। কিন্তু দীর্ঘ ৪ বছর পরও সেই আহ্বায়ক কমিটিতেই মহানগর যুবলীগের পরিধি আটকে আছে।