প্রচ্ছদ > শীর্ষ সংবাদ > ইতালি যাওয়ার পথে নিখোঁজ বিশ্বনাথের দুই যুবক

ইতালি যাওয়ার পথে নিখোঁজ বিশ্বনাথের দুই যুবক

শীর্ষ সংবাদ সিলেট প্রতিক্ষণ সিলেট শীর্ষ

সময়ের ডাক :: লিবিয়া থেকে ইতালি যাওয়ার পথিমধ্যে নিখোঁজ হওয়াদের তালিকায় দিলাল মিয়া (৩৪) ও রেদওয়ানুল ইসলাম খোকন (২৬) নামের সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার দুই যুবক রয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। এর মধ্যে নৌকায় উঠার ১০ মিনিট পূর্বে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে দিলাল মিয়া তার ভাইকে জানিয়ে ছিলো তার (দিলাল) ইতালির উদ্দেশ্যে যাত্রা করার কথা।

আর একই নৌকার যাত্রী রেদওয়ানুল ইসলাম খোকন নৌকায় উঠার পূর্বে তার ভাইকে ভয়েস ম্যাসেজ পাঠিয়ে জানিয়ে ছিলো একই কথা। কিন্ত এর পর থেকে এই দুই যুবকের পরিবারের লোকজন তাদের সাথে আর কোন প্রকারের যোগাযোগ করতে পারছেন না বলে স্থানীয় সাংবাদিকদের জানিয়েছেন। দিলাল আর খাকন প্রায় ৫ মাস পূর্বে লিবিয়া গিয়ে ছিলেন। সেখান থেকে গত ১১ মে নৌকা যোগে ইতালি যাওয়ার কথা ছিল তাদের।

নিখোঁজ দিলাল মিয়া বিশ্বনাথ উপজেলার অলংকারী ইউনিয়নের শিমুলতলা গ্রামের ইর্শ্বাদ আলী মাস্টারের পুত্র ও রেদওয়ানুল ইসলাম খোকন একই উপজেলার রামপাশা ইউনিয়নের নওধার মাঝপাড়া গ্রামের ইলিয়াস আলীর পুত্র।

এদিকে গত শনিবার লিবিয়া থেকে ইতালি যাওয়ার পথে তিউনিসিয়ার উপকূলবর্তী ভূমধ্যসাগরে অভিবাসীবাহী নৌকা ডুবিতে নিহত ২৭ বাংলাদেশীদের মধ্যে বিশ্বনাথ উপজেলার খোকন, রুবেল ও বেলাল নামে ৩ যুবক ছিলেন বলে একটি জাতীয় পত্রিকায় উল্লেখ করা হয়েছে। এছাড়া ওই নৌকা ডুবি থেকে ফিরে আসা সিলেটের যুবক বেলাল সাথে নিখোঁজ রেদওয়ানুল ইসলাম খোকনের পরিবারের সদস্যরা যোগাযোগ করলে বেলাল জানিয়েছেন তার সঙ্গে একই নৌকায় যাত্রী ছিলেন খোকনও। অপর দিকে নিখোঁজ দিলাল মিয়ার ভাই শানুর মিয়া জানিয়েছেন রেদওয়ানুল ইসলাম খোকনের সঙ্গে একই নৌকায় যাত্রী ছিলেন দিলাল মিয়া।

ভূমধ্যসাগরে অভিবাসীবাহী নৌকা ডুবিতে নিহত ২৭ বাংলাদেশির পরিচয় অনেকটাই নিশ্চিত হয়েছেন বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি। তাদের মধ্যে বিশ্বনাথের তিন যুবকের নাম উল্লেখ করায় ধারণা করা হচ্ছে নিখোঁজ দিলাল মিয়া ও রেদওয়ানুল ইসলাম খোকন ওই নৌকার যাত্রী ছিলেন।

এদিকে দিলাল মিয়া ও রেদওয়ানুল ইসলাম খোকনের পরিবারসহ আত্মীয়-স্বজন রয়েছে দুঃচিন্তায়। তাদের পরিবারের আহাজারীতে আকাশ-বাতাস ভারী হয়ে উঠছে। পরিবারের সদস্যদের সান্তনা দেওয়ার ভাষা হারিয়ে ফেলেছেন পাড়া-প্রতিবেশীরাও।