প্রচ্ছদ > শীর্ষ সংবাদ > বিশ্বনাথে চেক ডিজঅনার মামলার আসামী মতছিনকে গ্রেফতার করছেনা পুলিশ

বিশ্বনাথে চেক ডিজঅনার মামলার আসামী মতছিনকে গ্রেফতার করছেনা পুলিশ

শীর্ষ সংবাদ সিলেট প্রতিক্ষণ

সময়ের ডাক: বিশ্বনাথে চেক ডিজঅনার মামলার আসামী প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ালেও পুলিশ তাকে ধরছেনা বলে অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগিরা। বুধবার দুপুরে সিলেট জেলা প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন বিশ্বনাথের শাহজির গাউ গ্রামের মৃত আওলাদ আলীর পুত্র সেলিম মিয়া ও ওসমানীনগর উপজেলার রুঙ্গিয়া গ্রামের আজহার আলীর পুত্র আব্দুর রউফ।

সংবাদ সম্মেলনে তারা বলেন, সেলিম মিয়া বিদেশ যাওয়ার উদ্দেশ্যে বিশ্বনাথের দেওকলস ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ফখরুল ইসলাম মতছিনকে ১৪ লাখ ৮০ হাজার টাকা প্রদান করেন। কিন্তু বিদেশ পাঠাতে ব্যর্থ হওয়ার পরও মতছিন টাকা দিতে গড়িমসি শুরু করেন। চাপের মুখে সেলিম মিয়াকে তিনি একটি চেক প্রদান করলেও তা ব্যাংকে ডিজঅনার হয়।
২০১৬ সালের ৯ নভেম্বর সিলেট জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্র্যাট আদালতে মামলা (দায়রা ৭৭/২০১৭) করলে ২০১৮ সালের ১৫ জানুয়ারি মামলার রায় হয়। রায়ে চেয়ারম্যানকে ১ বছরের সশ্রম কারাদন্ড ও ১৪ লাখ ৮০ হাজার টাকা জরিমানার দন্ড ঘোষণা করা হয়। আসামী পলাতক থাকায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানাও জারি করা হয়। কিন্তু গত ১ বছর ধরে বিশ্বনাথ থানা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করছেনা।
একইভাবে প্রতারক ফখরুল ইসলাম মতছিনকে ওসমানীনগর উপজেলার রুঙ্গিয়া গ্রামের আজহার আলীর পুত্র শেখ আব্দুর রউফ ব্যবসার উদ্দেশ্যে ১ লাখ টাকা দিয়েছিলেন। পরে টাকা আদায় করতে না পেরে তিনিও মামলাদায়ের করেছিলেন (নং ৫৯৪/২০১৭, ওসমানীনগর সিআর ৫২)। এই মামলায় আদালত তাকে ৮ মাসের সশ্রম কারাদন্ড ও দেড় লাখ টাকার দ্বিগুণ অর্থদন্ডে দন্ডিত করেন। এই মামলায়ও তার বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট জারী হলেও বিশ্বনাথ থানা পুলিশ তাকে অজ্ঞাত কারণে তাকে গ্রেফতার করছেনা।
সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগিরা আরও বলেন, ক্ষমতার কাছে আদালতের রায়ও আজ পরাজিত। আসামী প্রকাশ্যে রাজনৈতিক কর্মকান্ড চালিয়ে গেলেও অজ্ঞাত কারণে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করছেনা। ভুক্তভোগিরা অবিলম্বের প্রতারক ফখরুল ইসলাম মতছিনকে গ্রেফতারে পুলিশ, সরকার ও দেশের সচেতন মানুষের সার্বিক সহযোগিতা চেয়েছেন।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মো. আব্দুর রউফ। এসময় সেলিম মিয়াও উপস্থিত ছিলেন।