প্রচ্ছদ > মৌলভীবাজার > বিপিএম পদক পাচ্ছেন মৌলভীবাজারের পুলিশ সুপার শাহ্ জালাল

বিপিএম পদক পাচ্ছেন মৌলভীবাজারের পুলিশ সুপার শাহ্ জালাল

মৌলভীবাজার সিলেট প্রতিক্ষণ

কুলাউড়া প্রতিনিধি :: ২০১৮ সালে অসীম সাহসিকতা ও বীরত্বপূর্ণ কাজের স্বীকৃতি হিসেবে পুলিশ বাহিনীর ৩৪৯ জন সদস্যকে বাংলাদেশ পুলিশ পদক-বিপিএম, বিপিএম সেবা, রাষ্ট্রপতির পুলিশ পদক-পিপিএম ও পিপিএম সেবা পদক পাচ্ছেন। মঙ্গলবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে পদকপ্রাপ্তদের তালিকা প্রকাশ করা হয়।

চলতি বছরের পুলিশ সপ্তাহে ‘প্রেসিডেন্ট পুলিশ মেডেল (পিপিএম) সেবা’ পদক প্রাপ্তদের এই তালিকায় স্থান পেয়েছেন মৌলভীবাজার জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শাহ জালাল, বিপিএম। আগামী ৪ ফেব্রুয়ারি পুলিশ সেবা সপ্তাহ-২০১৯ উপলক্ষে রাজারবাগ পুলিশ লাইন্স মাঠে আয়োজিত অনুষ্ঠানে পদকপ্রাপ্তদের হাতে পদক তুলে দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর আগে গত বছর তিনি ‘বাংলাদেশ পুলিশ পদক (বিপিএম) সেবা’ পদকে ভূষিত হন।

জঙ্গি ও গুরুত্বপূর্ণ মামলার রহস্য উদঘাটন, অপরাধ নিয়ন্ত্রণ, দক্ষতা, কর্তব্যনিষ্ঠা, সততা ও শৃঙ্খলামূলক আচরণের মাধ্যমে প্রশংসনীয় অবদানের জন্য তিনি এই পদক পেতে যাচ্ছেন। মোহাম্মদ শাহ জালালের বাড়ী কুমিল্লা জেলার সদর দক্ষিণে।

শাহ জালাল ২১তম বিসিএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে ২০০৩ সালে বিসিএস (পুলিশ) ক্যাডারে যোগদান করে বাংলাদেশ পুলিশের বিভিন্ন শাখায় পেশাদারিত্ব ও নিষ্ঠার সাথে দ্বায়িত্ব পালন করেন।

শাহ্ জালাল ২০১৫ সালের ৬ জুলাই মৌলভীবাজার জেলার পুলিশ সুপার হিসেবে যোগদান করেন। পুলিশ সপ্তাহ ২০১৮ তে তিনি প্রশংসনীয় অবদানের জন্য ‘বাংলাদেশ পুলিশ পদক (বিপিএম) সেবা’ পদকে ভূষিত হন।

রাজধানী রাজারবাগ পুলিশ লাইন্সের প্যারেড গ্রাউন্ডে ২০১৮ সালের ৮ জানুয়ারি পুলিশ সপ্তাহের অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মোহাম্মদ শাহ জালালকে বিপিএম-সেবা পদক পড়িয়ে দেন।

মৌলভীবাজারের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শাহ জালাল বলেন, ‘প্রথমে তিনি প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, আইজিপিসহ সব ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, সহকর্মী ও নিজ কর্মস্থল জেলার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান। তিনি বলেন, ভাল কাজ করলে যখন স্বীকৃতি পাওয়া যায় তখন ভাল লাগে এবং সামনে আরও ভালো কাজ করার অনুপ্রেরণা জাগে। জনগণের সেবা করতে সব সময় নিজেকে নিয়োজিত রাখতে চান।