প্রচ্ছদ > শীর্ষ সংবাদ > রোহিঙ্গ ইস্যূর সমাধান না হলে অশান্তি সৃষ্টি হবে: ড. মোমেন

রোহিঙ্গ ইস্যূর সমাধান না হলে অশান্তি সৃষ্টি হবে: ড. মোমেন

শীর্ষ সংবাদ সিলেট প্রতিক্ষণ

নিজস্ব প্রতিবেদক :: রোহিঙ্গা ইস্যূকে খুবই জঠিল ও গুরুত্বপূর্ণ বলে মন্তব্য করেছেন নবগঠিত মন্ত্রীসভার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও সিলেট-১ আসনের সংসদ সদস্য ড. এ কে আবদুল মোমেন। এই সমস্যা বেশিদিন জিইয়ে রাখলে অশান্তির সৃষ্টি হবে বলেও মনে করেন তিনি।

মন্ত্রীসভায় যোগদানের পর মঙ্গলবার দুপুরে সিলেট ফিরে হযরত শাহজালাল (রহ.) এর মাজার জিয়ারত শেষে সাংবাদিকদের কাছে এমন মন্তব্য করেন তিনি।

ড. মোমেন বলেন, ‘রোহিঙ্গা ইস্যূ নিয়ে অনেক কাজ হয়েছে। আরো আলোচনা করতে হবে। আলোচনার মাধ্যমে পরিস্থিতি আমাদের অনুকূলে নেয়ারও চেষ্টা করবো। নতুন করে এ ইস্যূ নিয়ে এখনো কোন চিন্তা করিনি। তবে এ পর্যন্ত সরকার যেসব পদক্ষেপ নিয়েছে সেগুলো বাস্তবায়ন এবং আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করবো।’

মায়ানমার বন্ধুপ্রতীম রাষ্ট্র এবং আলোচনার মাধ্যমে তাদেরকে বোঝানো সম্ভব বলে আশাবাদী মোমেন আরও বলেন, ‘রোহিঙ্গা ইস্যূ অনেক দিন জিইয়ে রাখা হলে এ অঞ্চলে অশান্তি সৃষ্টি হবে। এতে বাংলাদেশ ও মায়ানমার সমানভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হবে। এছাড়া প্রতিবেশী সকল দেশের স্বার্থ বিঘিœত হবে। তাই সকলের মঙ্গলের জন্য এই সমস্যার শান্তিপূর্ণ ও সুষ্ঠু সমাধান প্রয়োজন।’

এ সমস্যা সমাধানে বিশ^নেতাদেরও দায় দায়িত্ব রয়েছে উল্লেখ করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, মানবিক এই সমস্যা দূর করার জন্য তাদেরও বলিষ্ট ভূমিকা রাখা প্রয়োজন।

মন্ত্রীর দায়িত্ব পাওয়ার পর প্রথম ভারত সফর প্রসঙ্গে ড. মোমেন বলেন, ‘এটা কেবলমাত্র একটি সৌজন্য সফর। এই সফরে অনেক ইস্যূ আমরা তুলে আনতে চাই না। তবে অনেক আলোচনা হবে। বিভিন্ন বিভাগের ৯ জন সচিব যাবেন। সব মিলিয়ে বেশ কিছু বিষয়ে আলোচনা হবে।’

এসময় তার সাথে ছিলেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বদর উদ্দিন আহমদ কামরান, সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ, জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী, সহ সভাপতি আশফাক আহমদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নিজাম উদ্দিন, এডভোকেট নাসির উদ্দিন খান, সুজাত আলী রফিক, মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক বিজিত চৌধুরী, অধ্যাপক জাকির আহমদ, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক আজাদুর রহমান আজাদ, দপ্তর সম্পাদক এডভোকেট শামসুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট রণজিৎ সরকার প্রমুখ।

এদিকে, দুপুর দেড়টার দিকে মন্ত্রী ঢাকা থেকে বিমানের একটি ফ্লাইটে সিলেটে পৌঁছান। সেখান থেকে নেতাকর্মীরা মোটর শোভাযাত্রা সহকারে তাকে হযরত শাহজালাল (রহ.) এর মাজারে নিয়ে যান। মাজার জিয়ারত শেষে শহীদদের স্মরণে সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেন তিনি। বিকেল ৪টায় সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা দেয়া হয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেনকে।