জেলা প্রশাসক বরাবরে সিলেট জেলা বিএনপির স্মারকলিপি প্রদান

সময়ের ডাক ডেস্ক:: বিএনপির কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচীর অংশ হিসেবে জেলা প্রশাসক বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করেছে সিলেট জেলা বিএনপি।

বুধবার (৩ অক্টোবর) দুপুরে সিলেটের জেলা প্রশাসক নুমেরী জামান স্মারকলিপি গ্রহণ করেন।

বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি, তারেক রহমানের সাজা বাতিল, নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহার, আটক নেতাকর্মীদের মুক্তি ও নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দাবিতে এই স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। এসময় সিলেট জেলা বিএনপি অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

স্মারকলিপি প্রদান কালে উপস্থিত ছিলেন- সিলেট জেলা বিএনপির সাবেক আহ্বায়ক এডভোকেট মো. নুরুল হক, জেলা সহ-সভাপতি ও গোয়াইনঘাট উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল হাকিম চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক শামীম আহমদ, জেলা মুক্তিযোদ্ধা দলের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক এডভোকেট আনোয়ার হোসেন, জেলা বিএনপির দফতর সম্পাদক এডভোকেট মো. ফখরুল হক, প্রচার সম্পাদক নিজাম উদ্দিন জায়গীরদার, প্রকাশনা সম্পাদক এডভোকেট আল আসলাম মুমিন, যুব বিষয়ক সম্পাদক লুৎফুর রহমান, স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক লায়েছ আহমদ, তাঁতি সম্পাদক অহিদ আহমদ তালুকদার, মৎস্য সম্পাদক আলী আকবর, সহ-দফতর সম্পাদক এম. এ মালেক, সহ-যুব সম্পাদক আব্দুল মালেক, সহ-ক্ষুদ্র ঋণ সম্পাদক এনামুল হক মাক্কু, সহ-মুক্তিযোদ্ধা সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম সিরাজ।

বিএনপি অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন নেতৃবৃন্দের মধ্য থেকে উপস্থিত ছিলেন- আজির উদ্দিন আহমদ, ফয়েজুর রহমান ফয়েজ, খালেদ আহমদ চেয়ারম্যান, শওকত আলী বাবুল, এডভোকেট লিয়াকত আলী, হাসান মঈনুদ্দিন আহমদ, এডভোকেট নুর আহমদ, জসিম উদ্দিন, আশরাফ বাহার, হাজি গুলজার আহমদ, লিটন আহমদ, এখলাছুর রহমান মুন্না, আব্দুল মুকিত, সাইদুল ইসলাম হৃদয়, এডভোকেট শাহ নেওয়াজ রানা, মোস্তাকিম আহমদ ফরহাদ, শাহান আহমদ, রাজন মিয়া, রাজবীর আহমদ জসিম ও মিজান আহমদ প্রমুখ।

স্মারকলিপিতে বলা হয়- গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে রাষ্ট্র পরিচালনার লক্ষ্যে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন সকলের কাছে গ্রহণযোগ্য করার জন্য অংশগ্রহণ মূলক, অবাধ ও সুষ্ঠুভাবে পরিচালিত করার মহৎ উদ্দেশ্যে বিএনপির পক্ষ থেকে ৭ দফা দাবি এবং ১২ লক্ষ্য পেশ করা হয়েছে। দাবী গুলো হলো: (১) বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও মামলা প্রত্যাহার। (২) বর্তমান জাতীয় সংসদ বাতিল। (৩) সরকারের পদত্যাগ ও সকল রাজনৈতিক দলের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকার প্রতিষ্ঠা করা। (৪) যোগ্য ব্যক্তিদের সমন্বয়ে নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন এবং নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার না করার বিধান নিশ্চিত করা। (৫) সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে ম্যাজিস্ট্রেসি ক্ষমতা সহ সশস্ত্র বাহিনী নিয়োগ। (৬) নির্বাচনের স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে দেশীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষক নিয়োগের ব্যবস্থা নিশ্চিত এবং সম্পূর্ণ নির্বাচন প্রক্রিয়া পর্যবেক্ষণে তাদের ওপর কোন ধরনের বিধি নিষেধ আরোপ না করার বিধান। ৭. ক) দেশের বিরোধী সকল রাজনৈতিক নেতা-কর্মীর মুক্তি, সাজা বাতিল ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার। খ) নির্বাচন তফসিল ঘোষণার তারিখ থেকে ফলাফল চূড়ান্ত না হওয়া পর্যন্ত চলমান সকল রাজনৈতিক মামলা স্থগিত রাখা ও নতুন মামলা না দেয়ার নিশ্চয়তা। গ) পুরনো মামলায় কাউকে গ্রেফতার না করার নিশ্চয়তা। ঘ) কোটা সংস্কার আন্দোলন, নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন, সাংবাদিকদের আন্দোলন এবং সামাজিক গণমাধ্যমে মতপ্রকাশের অভিযোগে ছাত্র-ছাত্রী, সাংবাদিক সহ সকলের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহার ও মুক্তির নিশ্চয়তা প্রদান করতে হবে।

কারান্তরীণ বেগম খালেদা জিয়াকে অবিলম্বে নিঃশর্ত মুক্তি দিয়ে গণতন্ত্রকে সুসংহত করার লক্ষ্যে বিএনপি ঘোষিত ৭দফা দাবি মেনে নেয়ার জন্য সরকারের নিকট জোর দাবি জানান জেলা বিএনপি নেতৃবৃন্দ।