সেমিফাইনালে বাংলাদেশের যুবারা, সাথে শ্রীলঙ্কা

স্পোর্টস ডেস্ক::যুব এশিয়া কাপে হংকংকে রীতিমতো উড়িয়ে দিয়ে জয় পেলেও সেমিফাইনালের অপেক্ষায় থাকতে হয়েছে যুবাদের। তবে শ্রীলঙ্কা পাকিস্তানকে ২৩ রানে হারালে সেমিফাইনাল নিশ্চিত হয়েছে বাংলাদেশের। সেই সাথে শ্রীলঙ্কাও সেমির টিকিট কেটেছে।

আগামী পরশু (বৃহস্পতিবার) প্রথম সেমিফাইনালে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ ভারত।

গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচ খেলতে নেমেছিল চার দলই। এ ম্যাচের আগে কারও সেমিফাইনাল নিশ্চিত ছিল। দুপুরে জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে হংকংকে উড়িয়ে দিয়েও সুপার ফোর নিশ্চিত হয়নি বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের। তৌহিদ হৃদয়দের সেমিফাইনাল নির্ভর করছিল পাকিস্তান-শ্রীলঙ্কা ম্যাচের ওপর। পাকিস্তান জিতে গেলেই কপাল পুড়ত বাংলাদেশের। শেষ পর্যন্ত সেটি হয়নি। চট্টগ্রামের এমএ আজিজে পাকিস্তানকে ২৩ রানে হারিয়ে বাংলাদেশকে নিয়েই সেমিফাইনালে উঠেছে শ্রীলঙ্কা।

শ্রীলঙ্কা অনূর্ধ্ব-১৯ দল পাকিস্তান যুবাদের খুব যে বড় লক্ষ্য দিয়েছিল, তা নয়। পাকিস্তানি পেসার আরশাদ ইকবালের দুর্দান্ত বোলিংয়ে লঙ্কানরা ৪৯.৪ ওভারে অলআউট হয়েছিল ২০০ রানে। চারে নামা কালানা পেরেরা ৫১ রান না করতে পারলে শ্রীলঙ্কার ২০০ করাই কষ্টকর হতো! আরশাদ ৩৪ রানে পেয়েছেন ৬ উইকেট। পাকিস্তান যদি অসাধারণ বোলিং করে থাকে, চামিন্দা ভাসের ছাত্ররা করলেন আরও দুর্দান্ত। পাকিস্তানের সামনে ২০১ রানের লক্ষ্যটা করে তুললেন ভীষণ কঠিন। পাকিস্তান যুবারা পুরো ৫০ ওভার খেললেন, অথচটা লক্ষ্যটা পেরোতে পারলেন না। ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে করতে পারলেন ১৭৭ রান।

শ্রীলঙ্কা ২৩ রানে জিতে যাওয়ায় সবচেয়ে বড় উপকারটা হলো বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের। সুতোয় ঝুলে থাকা সেমিফাইনালটা অবশেষে নিশ্চিত হলো। ৩ ম্যাচে পূর্ণ ৬ পয়েন্ট পেয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে সেমিফাইনালে উঠেছে শ্রীলঙ্কা। বাংলাদেশের পয়েন্ট সেখানে ৪ আর পাকিস্তানের ২। গ্রুপ রানার্সআপ হওয়ায় পরশু প্রথম সেমিফাইনালে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ শক্তিশালী ভারত। ৫ অক্টোবর দ্বিতীয় সেমিফাইনালে আফগানিস্তান খেলবে শ্রীলঙ্কার সঙ্গে। দুটি সেমিফাইনাল ও ফাইনাল হবে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে।