বিশ্বনাথে সড়ক সংস্কারের দাবিতে স্মারকলিপি

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি :: সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার ‘রামপাশা-বৈরাগীবাজার-সিঙ্গেরকাছ বাজার সড়ক’ সংস্কার এবং রামাপাশা ইউনিয়নের রহমাননগর গ্রামের পানি নিষ্কাশনের জন্য সরকারি খালের ওপর থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ, কালভার্ট নির্মাণের দাবিতে মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও)-সহ বিভিন্ন দপ্তরে স্মারকলিপি প্রদান করেছেন এলাকাবাসী। এতে এলাকার বিভিন্ন গ্রামের প্রায় ৫৬ জন ব্যক্তি স্বাক্ষর প্রদান করেছেন।

স্মারকলিপিতে এলাকাবাসী উল্লেখ করেছেন, রহমাননগর গ্রামের লাল মিয়া, ছুরত মিয়া, তুরন মিয়া, বাদশা মিয়া, আলতাব আলী, নূর উদ্দিন, হাজী আহমদ আলী’সহ সড়কের পাশে বসবাসকারী ব্যক্তিরা প্রায় সাড়ে ৩ শত বছরের পুরোণো পানি নিষ্কাশনের সরকারি খাল দখল ও ভরাট করে বাড়ির বাউন্ডারি দেয়াল, দোকান ও বসতঘরসহ বিভিন্ন স্থাপনা নির্মাণ করার ফলে ‘বৈরাগী বাজার-সিঙ্গেরকাছ বাজার সড়কের’ উপর স্থায়ী জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। যার ফলে এখানে বিশাল বিশাল গর্ত ও অসংখ্য খানাখন্দে ভরপুর হয়ে ভয়ংকর রুপ ধারণ করেছে জনগুরুত্বপূর্ণ সড়কটি। বিশেষ করে লাল মিয়া গং খালের উপর বাউন্ডারি দেয়ালের নিচের দিকে ছোট একটি সুড়ঙ্গ ২০১৭ সালের বর্ষাকালে সম্পূর্ণ বন্ধ করে দিলে রাস্তাটি প্রায় জলাশয়ে পরিণত হয়ে যায়। যার ফলে সড়ক দিয়ে চলাচলের ক্ষেত্রে যানবাহনের চালক ও পথচারীদেরকে চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। সৃষ্টি হচ্ছে নানান সমস্যার।

স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা এলাকাবাসীর দাবিগুলো হল- অবৈধভাবে দখল করে নেওয়া সরকারি খালের উপর থেকে সকল অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে পানি নিষ্কাশনের জন্য সরকারি খাল উদ্ধার করা, মরহুম মছদ্দর আলীর বাড়ির রাস্তার সামনে একটি কালভার্ট নির্মাণ করা (উল্লেখ্য- পানি চলাচলের জন্য এখানে পাকিস্তান আমল থেকে একটি টিনের পাইপ বসানো ছিল, কিন্তু সড়ক পাকা করার সময় ঠিকাদার এখানে কালভার্ট নির্মান না করে মাটি চাপা দিয়ে চলে যায়), উল্লেখিত পিপা থেকে প্রায় ১০০ ফুট উত্তরদিক মরহুম আবদুল মান্নানের বাড়ির পিছনে ও নূর ইসলামের বাড়ির সড়কে কালভার্ট নির্মান করা, রামপাশা-বৈরাগী বাজার-সিঙ্গেরকাছ বাজার সড়কের বিভিন্ন স্থানে পানি নিষ্কাশনের জন্য প্রয়োজন অনুযায়ী ড্রেন নির্মাণ করা।

এলাকাবাসী তাদের দাবিগুলো দ্রুত বাস্তবায়নের জন্য সংশ্লিস্ট কর্তৃপক্ষসহ সরকারের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন। স্মারকলিপি প্রদানের সময় উপস্থিত ছিলেন প্রবাসী সাংবাদিক ও কবি সাইদুর রহমান সাঈদ, শিক্ষানুরাগী শফিকুর রহমান বাবুল, নাজিম উদ্দিন আহমদ, কাজী ফয়জুর রহমান, সংগঠক আনহার আলী, মশরফ আলী, মনসুর আলী, পার্থ সারথী দাস পাপ্পু, কাউছার আহমদ, জনি দাস প্রমুখ।