ছাত্রলীগের প্রথম টার্গেট সিলেট

সময়ের ডাক ডেস্ক: অনেক জল্পনা-কল্পনা আর অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে মাস দুয়েক আগে ঘোষনা করা হয় কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের নতুন নেতৃত্বের। অনেকটা চমক দেখিয়ে কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি হন মো. রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক হন গোলাম রাব্বানী। নতুন দায়িত্বপ্রাপ্ত এই দুই নেতা এখনো নতুন কোনো ইউনিট কমিটির অনুমোদন দেননি। কেন্দ্রীয় পুর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের পরই তারা নতুন কমিটি গঠনের কাজ শুরু করবেন বলে জানিয়ে রেখেছেন। এক্ষেত্রে তাদের প্রথম টার্গেট সিলেট ছাত্রলীগ।

কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের শীর্ষ পদের নেতৃত্ব বাছাইয়ে সময় নেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেসময় কেন্দ্রের শীর্ষ দুটি পদ ঘোষনা করা হলেও পুর্ণাঙ্গ কমিটির নেতাদের নাম ঘোষণা করা হয়নি। তবে এটি চূড়ান্ত অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে। আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে ফিরলেই এটি চূড়ান্ততা লাভ করবে। আগামী ১৫ অক্টোবরের মধ্যে শেখ হাসিনা আংশিক কমিটির অনুমোদন দিতে পারেন।

কেন্দ্র থেকে পাওয়া সূত্রে জানা গেছে, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে ১০০ বা তার চেয়ে কিছু বেশি সদস্যবিশিষ্ট একটি কমিটি ঘোষণা হতে পারে। নির্বাচনের পর সংগঠনের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী কমিটি পুর্ণাঙ্গ করা হবে।

এদিকে, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সূত্র জানিয়েছে, সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের কমিটি গঠনই হবে তাদের প্রথম লক্ষ্য। সিলেট সিটি নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর পরাজয় আর আগামী সংসদ নির্বাচনকে মাথায় রেখেই তারা সিলেট ছাত্রলীগের কমিটি গঠনে প্রাধান্য দেবেন বলে জানা গেছে।

এছাড়াও শীঘ্রই সিলেটের দুটি বিশ্ববিদ্যালয় কমিটির নেতৃত্ব চূড়ান্ত করবেন তারা বলে জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য যে, বিভিন্ন আলোচনা-সমালোচনা জন্ম দেয়ায় সিলেট জেলা ছাত্রলীগের কমিটি নিজেদের মেয়াদের শেষ সময়ে বিলুপ্ত ঘোষণা করে সোহাগ-জাকির কমিটি। এর আগের কমিটি সিলেট মহানগর ছাত্রলীগের আংশিক কমিটির অনুমোদন দিলেও তাদের পুরো মেয়াদে পুর্ণাঙ্গ করতে পারেনি।