গোলাপগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচন দলের চেয়ে গোষ্ঠী বড়

সময়ের ডাক :গোলাপগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে প্রার্থী দিয়েছে কেবল আওয়ামী লীগ। আর কোনো দলের প্রার্থী নেই। বিএনপির দুই নেতা দলীয় প্রার্থী না হয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন। আওয়ামী লীগের আরেক নেতাও স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন এখানে।

দলের নেতা দলীয় প্রতীকে প্রার্থী না হয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ার প্রসঙ্গে টেনে পৌরসভার সরস্বতী এলাকার ভোটার কামাল হোসেন বলেন, এখানে নির্বাচনে দলের চাইতেও গোষ্ঠী বড় ফ্যাক্টর। ব্যক্তির গ্রহণযোগ্যতা আর গোষ্ঠীর প্রভাব দেখে ভোট দেন এখানকার ভোটাররা।

গোলাপগঞ্জের অতীতের পৌর নির্বাচনগুলো গোষ্ঠীগত ভোটই বড় ফ্যাক্টর হয়ে ওঠেছিলো বলে জানান তিনি।

 

মূলত দুটি গোষ্ঠীই পৌর এলাকায় প্রভাশালী। তবে সাম্প্রতিক সময়ে এই দুটি গোষ্ঠীতেই বিভাজন দেখা দিয়েছে বলেও জানিয়েছেন ভোটাররা।

আগামী ৩ অক্টোবর গোলাপগঞ্জ পৌরসভার মেয়র পদে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তফসিল ঘোষণার পর থেকেই দিন রাত এক করে প্রচার-প্রচারণায় ও পথসভায় অংশ নিচ্ছেন প্রার্থীরা।

রোববার (২৩ সেপ্টেম্বর) বিকেলে গোলাপগঞ্জে ঘুরে দেখা যায়, পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের রণকেলি এলাকার দক্ষিণ ভাগ ও লামা দক্ষিণ ভাগে গণসংযোগ করছেন মেয়র পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী সাবেক মেয়র জাকারিয়া আহমদ পাপলু।

নির্বাচন প্রসঙ্গে তিনি জানান, প্রতীক বরাদ্দের পর থেকে ভোটারদের বাড়ি বাড়ি যাচ্ছি। নির্বাচনকে ঘিরে ভোটারদের ব্যাপক সাড়া পাচ্ছি। নির্বাচনে জয়ের বিষয়ে আমি আশাবাদী।

ভোটাররা আমার বিগতদিনের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের জন্যে নৌকা প্রতীকে ভোট দেবে বলে আমার বিশ্বাস, বলেন পাপলু।