ঢাকার ঐতিহ্যবাহী ‘হলুদ মসজিদ’ঢাকার ঐতিহ্যবাহী ‘হলুদ মসজিদ’

ধর্ম ডেস্ক:মসজিদটির পুরো নাম ‘ধনু বেপারি হলুদ মসজিদ’। রাজধানী ঢাকার নারিন্দার শরৎগুপ্ত রোডে অবস্থিত। নির্মাণের নির্ধারিত দিনক্ষণ জানা না গেলেও মসজিদটি শত বছরের পুরনো।
ধনু বেপারি হলুদ মসজিদটিকে বেশির ভাগ মানুষ ‘হলুদ মসজিদ’ নামেই বেশি চেনে। এটি শুধু নারিন্দার ঐতিহ্য নয় বরং পুরান ঢাকার ঐতিহ্যবাহী প্রাচীন স্থাপত্যের একটি।

মসজিদটি যার নামে স্থাপিত, তিনি হলেন ‘ধনু বেপারি’। ধনু বেপারি ছিলেন নারিন্দার অনেক সম্পদশালী ব্যক্তি। ১৮৫০ সালে তিনি মারা যান। ১৮৪০ থেকে ৫০ সালের মধ্যে এ মসজিদটি নির্মাণ করা হয়। সে হিসেবে মসজিদটির বয়স প্রায় পৌণে দু’শ বছর।

মসজিদটিতে যেতে হলে রাজধানী ঢাকার যাত্রাবাড়ী, সায়েদাবাদ, গুলিস্তান কিংবা সদরঘাট আসতে হবে। সেখান থেকে যে কোনো বাহনে নারিন্দার শরৎগুপ্ত রোডে অবস্থিত ‘হলুদ মসজিদ’-এ সহজেই চলে আসা যায়।

উল্লেখ্য যে, হলুদ মসজিদটি ধনু বেপারি যেভাবে তৈরি করেন সে স্ট্রাকচার বর্তমানে নেই। ১৯৪০ সালে পুরনো মসজিদটিকে ভেঙে নতুনরূপ দেয়া হয়।
বর্তমানে ধনু বেপারি হলুদ মসজিদে দেড় থেকে দুই হাজার মুসল্লি নামাজ আদায় করতে পারেন। মসজিদটির চতুর্থ ও পঞ্চম তলায় দ্বীন শিক্ষায় রয়েছে মাদরাসা।