প্রচ্ছদ > সিলেট প্রতিক্ষণ > বিশ্বনাথে ককটেল বিস্ফোরণ, বিএনপি নেতাদের বাড়ি তল্লাশী

বিশ্বনাথে ককটেল বিস্ফোরণ, বিএনপি নেতাদের বাড়ি তল্লাশী

সিলেট প্রতিক্ষণ

সময়ের ডাক :: সিলেটের বিশ্বনাথে উপজেলা সদরের ৪টি পৃথক স্থানে গত শনিবার (১ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ৯টার দিকে একই সময়ে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।রোববার রাতে থানার এসআই সবুজ কুমার নাইডু বাদী হয়ে ৭০ জনকে অজ্ঞাতনামা অভিযুক্ত করে বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে মামলাটি দায়ের করেন। মামলা নং ১ (তাং ২.০৯.১৮ইং)। তবে এঘ টনায় সোমবার রাত ৮টা পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করেনি পুলিশ।

ককটেল বিস্ফোরণের প্রতিবাদে ওই রাতেই তাৎক্ষণিক প্রতিবাদ মিছিল ও সভা করে উপজেলা আওয়ামী লীগ, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। প্রতিবাদ মিছিলটি উপজেলা সদরের প্রধান প্রধান সড়কগুলো প্রদক্ষিণ করে নতুন বাজারস্থ গোলচত্ত¡রে প্রতিবাদ সভায় গিয়ে শেষ হয়। মিছিল শেষে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক মকদ্দছ আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল আজিজ সুমন প্রমুখ।

এদিকে রাতের আধাঁরে উপজেলা সদরে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনার পর রোববার দিবাগত ভোররাতে উপজেলা বিএনপির সহ সভাপতি গৌছ খান, যুগ্ম সম্পাদক হাজী আবদুল হাই, আহমেদ-নূর উদ্দিনর বাড়ি তল্লাশী করেছে থানা পুলিশ। পুলিশ কর্তৃক নিজ নিজ বাড়ি তল্লাশীর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিএনপির ওই তিন নেতা।

ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনায় ৭০ জনকে অজ্ঞাতনামা অভিযুক্ত করে থানায় মামলা দায়েরের সত্যতা নিশ্চিত করে বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) মোহাম্মদ শামসুদ্দোহা পিপিএম বলেন, এঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেপ্তারে পুলিশী অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
প্রসঙ্গত, গত শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলা সদরের ৪টি পৃথক স্থানে (পুরাণ বাজারস্থ সিএনজি অটোরিক্সা স্ট্যান্ডে, বিশ্বনাথ-জগন্নাথপুর রোডের আঙ্গারুখা ব্রিজের কাছে এবং নতুন বাজারস্থ লাইটেস স্ট্যান্ডের সামনে, বিশ্বনাথ-রামপাশা রোডের আবদুল খালিক ও সেবা কমিউনিটি সেন্টারের সামনে) একই সঙ্গে ৪টি ককটেল বিস্ফোরণ হয়।

এতে কোন হতাহতের ঘটনা না হলেও মানুষের মধ্যে এক অজানা আতংকের সৃষ্টি হয়েছ।