মালয়েশিয়ায় ৫ শতাধিক ‘অবৈধ’ অভিবাসী গ্রেপ্তার

 

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:সাড়াশি অভিযান চালিয়ে ৫ শতাধিক অবৈধ অভিবাসীকে গ্রেপ্তার করেছে মালয়েশিয়ার অভিবাসন বিভাগ। থ্রি-প্লাস ওয়ান অ্যামনেস্টি প্রোগ্রামের মাধ্যমে অবৈধ শ্রমিকদের দেশে ফেরার সুযোগ শেষ হওয়ার পরপরই দেশটির স্বাধীনতা দিবসের প্রথম প্রহর থেকেই এ সাড়াশি অভিযান চালানো হয়।খবরে বলা হয়, পাঁচ সহস্রাধিক অভিবাসীকে যাচাই-বাছাইয়ের মধ্য দিয়ে দেশটির অভিবাসন বিভাগ ওই ৫ শতাধিক অবৈধ অভিবাসীকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। তবে গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে ঠিক কতজন বাংলাদেশি রয়েছে তা এখনও জানা যায়নি।

 

শনিবার দিনভর অবৈধ অভিবাসী বিরোধী এ অভিযান পরিচালনার সময় একজন মহিলা ইমিগ্রেশন কর্মকর্তা আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। অভিযানের ফলে মালয়েশিয়ায় বাঙালি অধ্যুষিত কোতারায়া এলাকা এখন প্রায় ফাঁকা। যাত্রীবাহী বাসেও প্রবাসীদের তেমন দেখা মিলছে না।

কারণ হিসেবে জানা যায়, এজেন্টর নামে ভিসা করে বিভিন্ন জায়গায় কাজ করলেও অভিবাসন বিভাগ বলছে তাদেরকেও অবৈধ হিসেবে বিবেচিত করা হবে। এছাড়া অনেকের ভিসা থাকা সত্ত্বেও গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ফলে প্রবাসীদের মনে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

ইমিগ্রেশন বিভাগের প্রধান দাতুকে সেরি মুস্তফার আলী সাংবাদিকদের বলেন, সম্ভাব্য সব জায়গায় অভিযান পরিচালিত হবে এবং যতক্ষণ না পর্যন্ত তাদের (অবৈধ প্রবাসী) আইনের আওতায় আনতে পারছি ততক্ষণ অভিযান অব্যাহত থাকবে। অবৈধ শ্রমিক এবং মালিকদের সঙ্গে কোনো আপোষ করা হবে না।

 

মুস্তফার আলী জানিয়েছেন, এবার মালিকপক্ষকেও আইনের আওতায় আনা হবে এবং গ্রেপ্তারকৃতদের বিচার না হওয়া পর্যন্ত কোনো প্রকার আউট পাস সংগ্রহ করতে দেয়া হবে না।

তিনি আরও বলেন, বিভিন্ন সময় অবৈধ অভিবাসী ধরা পড়লেও এবারের অভিযান ভিন্ন। সর্বোচ্চ ৫০ হাজার রিঙ্গিতসহ জেল জরিমানার বিধান রয়েছে। এবার তিন বাহিনীর (ইমিগ্রেশন, পুলিশ ও রেলা) সর্বাত্মক প্রচেষ্টায় দেশকে অবৈধ অভিবাসী মুক্ত করা হবে।

সুত্র : স্টার অনলাইন