শাহবাগে অবরোধ ঢাবি ও বুয়েট শিক্ষার্থীদের

সময়ের ডাক ডেস্ক:নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনকালে শনিবার রাজধানীর জিগাতলায় শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে শাহবাগে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়-বুয়েটের শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীদের কেয়েকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে তারা ঝিগাতলার দিকে মার্চ করবেন।

রবিবার সকালে বিক্ষোভ শুরু করেন তারা। সকাল ১০টা থেকে ঢাবি ও বুয়েটের শিক্ষার্থীরা দলে দলে শাহবাগ পয়েন্টে জড়ো হতে শুরু করেন। এ প্রতিবেদন লেখার সময় (বেলা সাড়ে বারোটর) সেখানে বিপুল শিক্ষার্থীর উপস্থিতি দেখা গেছে।

এদিকে সকাল থেকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ও খুলনায় খুবি শিক্ষার্থীরাও বিক্ষোভ করছেন। এছাড়া সকাল থেকে মিরপুর ১০ নম্বর গোল চত্বরে শতাধিক পুলিশ অবস্থান করছে। সেখানে পুলিশের একটি জলকামান ও দুটি সাঁজোয়া যান দেখা যায়। মিরপুর ১০ নম্বর থেকে ২ নম্বরে যাওয়ার সড়কের মাথায় পুলিশের চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। সেখানে মোটরসাইকেলসহ বিভিন্ন যানবাহনের লাইসেন্স ও বৈধ কাগজপত্র আছে কি না, তা পরীক্ষা করছে ট্রাফিক পুলিশ।

 

শিক্ষার্থীদের বিচ্ছিন্নভাবে দু-একটি জায়গায় ঘোরাফেরা করতে দেখা গেছে। মিরপুর কমার্স কলেজ, শহীদ পুলিশ স্মৃতি স্কুল অ্যান্ড কলেজসহ আশপাশের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ঘুরে দেখা গেছে, এগুলোর মূল ফটক বন্ধ। কোনো শিক্ষার্থীকে বাইরে বের হতে দেওয়া হয়নি। রাস্তাঘাটে যানবাহনের সংখ্যা বেশ কম।

গত ২৯ জুলাই রাজধানীর কুর্মিটোলার বিমানবন্দর সড়কে জাবালে নূর পরিবহনের বাসের চাপায় দুই কলেজ শিক্ষার্থী নিহত হয়। এ ছাড়া আহত হয় বেশ কয়েকজন। নিহত শিক্ষার্থীরা হলো শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের একাদশ শ্রেণির বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রী দিয়া খানম মিম ও দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র আবদুল করিম রাজীব। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিহতদের প্রত্যেক পরিবারকে এরই মধ্যে ২০ লাখ টাকার অনুদান দিয়েছেন। নৌমন্ত্রী শাজাহান খানের পক্ষ থেকেও পাঁচ লাখ টাকা করে দেওয়া হয়েছে।

 

এ ঘটনার প্রতিবাদে রাস্তায় বিক্ষোভে ফেটে পড়ে শিক্ষার্থীরা। এর পর থেকে ঢাকার অভ্যন্তরীণ সড়কগুলোয় বাস চলাচল একেবারেই কমে যায়। এমনকি আন্তজেলা বাস চলাচলও বন্ধ হয়ে যায়।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা নয়টি দাবি করেছে। তাদের সব দাবি মেনে নেওয়ার কথা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এ অবস্থার মধ্যেই শনিবার রাজধানীর ধানমণ্ডির আওয়ামী লীগ সভাপতির কার্যালয়ে হামলা করা হয় বলে বিকালে এক সংবাদ সম্মেলনে জানান সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।