সিলেটে কারাগারে থেকেও মামলার আসামী কাজী মেরাজ!

সময়ের ডাক : দলীয় কোন্দলে খুন হওয়া সিলেট মহানগর ছাত্রদল নেতা আবুল হাসনাত শিমু হত্যা মামলায় কারাগারে থাকা মদন মোহন কলেজ ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি কাজী মেরাজকে দক্ষিণ সুরমায় হামলার ঘটনায় আসামী করা হয়েছে। মামলার এজাহারনামাতে আসামীর তালিকায় কাজী মেরাজের নামও রয়েছে।এর আগে গত ২৬ ফেব্রুয়ারি শিমু হত্যার ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় আদালতে আত্মসমর্পণ করতে গেলে কাজী মেরাজকে কারাগারে প্রেরণ করেছিলেন আদালত। সেই থেকে তিনি কারাগারে রয়েছেন। বুধবার দিবাগত রাত ১০ টার দিকে নগরীর দক্ষিণ সুরমায় ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার আসামীর তালিকার ১৮ নম্বরে রয়েছে কারাগারে থাকা কাজী মেরাজের নাম।বিস্ফোরণের ঘটনায় বৃহস্পতিবার সিলেট বিএনপির ৪৮ নেতাকর্মীর নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাত আরো ২০-৩০ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন দক্ষিণ সুরমা থানার এসআই রায়হান উদ্দিন। মামলায় নাম উল্লেখ থাকা অন্য অভিযুক্তরা হচ্ছেন- আক্তার রশীদ চৌধুরী, আবুল কালাম আজাদ, তানভীর আহমদ আবির, আজাদ, মির্জা জনি, পারভেজ, বাবলু, শাহিন, আজহার আলী মানিক, হাবিব, খায়রুল, নাজমুল ইসলাম চৌধুরী, আতিফ চৌধুরী, মামুন আহমদ, রুহেল আহমদ, ছাত্রদল নেতা আলী আকবর রাজন, জেলা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক রাহাত চৌধুরী মুন্না, এস এম সেফুল, কামরুজ্জামান দিপু, ১০নং ওয়ার্ড বিএনপি নেতা নিয়ামত এলাহী, রিয়াজ উদ্দিন বাদশা, কয়েছ, জাবের, নাজিম উদ্দিন লস্কর, আব্দুস ছামাদ, সাবেক ছাত্রদল নেতা শাকিল মোর্শেদ, আজিজুল হোসেন আজিজ, মুন্না, ফয়েজ, ১৭নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি খোকন, রজব আলী, মহানগর বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক ইসতিয়াক সিদ্দিকী, জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আহাদ খান জামাল, কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সহ সভাপতি ভিপি মাহবুব, আফছর খান, রাসেল খান, রাজিব খান, শাহ জাহান, মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সহ সাংগঠনিক সম্পাদক নাবিল রাজা চৌধুরী, আব্দুস সামাদ তুহেল, মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রকিব চৌধুরী, বাচ্চু মিয়া, মহানগর বিএনপির ক্রীড়া সম্পাদক রেজাউল করিম নাচন, ডিসকো, রাসেদ এবং ফয়েজ আহমদ কয়েছ।সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার আব্দুল ওয়াহাব মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।দক্ষিণ সুরমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খায়রুল ফজল বলেছেন, এটি ভুলবশত হয়েছে। সে যদি কারাগারে থাকে তবে তার নাম আসামীর তালিকা থেকে বাদ দেয়া হবে।