নিজেকে কখনো নগর পিতা ভাবিনি: আরিফ

সময়ের ডাক:বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী বলেছেন, সাধারণ মানুষের দু:খ-কষ্টকে নিজের কষ্ট হিসেবে মেনে নিয়েছি। নিজেকে কখনো নগর পিতা ভাবিনি, সেবক ভেবেছি। তাই তো নগরীর উন্নয়নে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখতে পেরেছি। এজন্য মানুষ আমাকে ভালোবাসে। এই ভালোবাসা কিছু মানুষের সহ্য হয় না বলেই অপপ্রচার চালাচ্ছেন। মানুষের ভালোবাসা যেখানে আমাকে প্রেরণা দেয়, সেখানে কেউ আমাকে পরাজিত করতে পারবে না।

বৃহস্পতিবার (২৬ জুলাই) ধানের শীষের সমর্থনে নগরীর বিভিন্ন স্থানে গণসংযোগকালে তিনি এসব কথা বলেন। সকাল থেকে শুরু করে নগরীর বিভিন্ন স্থানে আরিফুল হক চৌধুরী গণসংযোগ করেন।

সকাল ১০টায় শাহী ঈদগাহ থেকে শুরু করে সিলেট জেলা স্বাস্থ্য বিভাগীয় কার্যালয় কলোনিতে গণসংযোগ করেন। দুপুরে পশ্চিম সুবিদবাজারস্থ লন্ডনী রোড এবং পাঠানটুলাস্থ আল আমিন আবাসিক এলাকায় ব্যাপকভাবে গণসংযোগ করেন আরিফুল হক চৌধুরী। গণসংযোগে বিএনপি এবং ২০ দলীয় জোটের সকল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা অংশগ্রহণ করেন। এসব গণসংযোগে সাধারণ মানুষের ধানের শীষের পক্ষে প্রবল উচ্ছ্বাস লক্ষ্য করা যায়।

গণসংযোগে আপামর জনতা আরিফুল হক চৌধুরীকে সমর্থন জানিয়ে বলেন, নগরীর উন্নয়নে আপনি কাজ করেছেন। নগরে বিশুদ্ধ পানির ব্যবস্থা করায় এবং জলাবদ্ধতা নিরসনে আপনার দূরদৃষ্টিমূলক কাজ নগরীর উন্নয়নকে আরো ত্বরান্বিত করবে। মানুষের কল্যাণে আপনি কাজ করেছেন, নগরীর সার্বিক উন্নয়নই আপনার লক্ষ। আমরা আপনাকে আবারও নির্বাচিত করবো আমাদের সেবক হিসেবে।

সাধারণ জনগণ আরিফুল হক চৌধুরীর বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ তুলে ধরে বলেন, নগরীর উন্নয়নে যিনি কষ্টকে স্বীকার করতে পারেন তাকে আবার নির্বাচিত করা সকলের নৈতিক কর্তব্য। যে মানুষটি একমাত্র নগরীর কল্যাণে জেল-জুলুম সহ্য করেছেন, তাকে মূল্যায়ন করে নগরীর উন্নয়ন আরও এগিয়ে নিতে হবে। এর মাধ্যমে আমাদের সুন্দরভাবে বেঁচে থাকার সুন্দর পরিবেশ সৃষ্টি হবে।

গণসংযোগে প্রতিদিনকার অংশগ্রহণ করেন ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান এডভোকেট মাওলানা আব্দুর রকীব, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা আব্দুল মালিক, মহানগর সভাপতি মাওলানা খলিলুর রহমান, সিনিয়র সহসভাপতি প্রিন্সিপাল মাহমুদুল হাসান, সাবেক ছাত্রনেতা ও বিশিষ্ট শিল্পপতি ফয়সল আহমদ চৌধুরী, খেলাফত মজলিস সিলেট মহানগরের সহসভাপতি আব্দুল হান্নান তাপাদার, সিলেট মহানগর বিএনপির সহসভাপতি সালেহ আহমদ খসরু, আমির হোসেন, জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রব চৌধুরী ফয়সল, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম খসরু।

বিভিন্ন স্থানে গণসংযোগে অংশ নেন জেলা বিএনপির উপদেষ্টা মাজহারুল ইসলাম ডালিম, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুশ শহীদ, জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কাশেম, বিএনপি নেতা লল্লিক আহমদ চৌধুরী, জেলা যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক সাদিকুর রহমান সাদিক, বিএনপি নেতা এম. মুখলেস খান, জেলা ছাত্রদলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এখলাসুর রহমান মুন্না, সমাজসেবক ও শিক্ষানুরাগী আফসর খান, মওদুদুল হক মওদুদ, তোফায়েল আহমদ , হাজী তারা মিয়া প্রমুখ।