নির্বাচিত হলে সিলেটকে পূর্ণাঙ্গ আধুনিক নগরী করার অঙ্গিকার- মেয়র আরিফের

 

নিজস্ব প্রতিবেদক :: মেয়র নির্বাচিত হলে আমার রেখে যাওয়া অসমাপ্ত উন্নয়ন কাজ বাস্তবায়ন করে একটি পূর্ণাঙ্গ আধুনিক নগরী জনগনকে উপহার দেয়ার অঙ্গিকার করে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেছেন, পাঁচ বছরের জন্য জনগন আমাকে তাদের মূল্যবান ভোট দিয়ে মেয়র নির্বাচিত করলেও মাত্র দু’বছর সময় পেয়ে আমি নগরীর উন্নয়নে নিজেকে সমর্পন করে যে উন্নয়ন সাধিত করেছি তা নগরীর সম্মানিত বাসিন্দাদের সহযোগিতায় করা সম্ভব হয়েছে। এজন্য নগরবাসীর প্রতি কৃতঞ্জতা প্রকাশ করে মেয়র বলেন, সিলেটকে একটি উন্নত, সুন্দর, পরিচ্ছন্ন ও পরিকল্পিত আধুনিক নগরী হিসেবে গড়ে তোলার সময় পাঁচ বছরই যথেষ্ট। পাঁচ বছর মেয়াদ পূর্ণ করতে পারলেই নগরবাসী দেখতে পারতেন সিলেটকে অন্যরূপে।

তিনি মঙ্গলবার দুপুরে সিলেট নগরীর কুমারপাড়া, নয়াড়ক ও চৌহাট্টা সড়ক প্রশস্থকরণ কাজ শেষে প্রায় আড়াই কিলোমিটার রাস্তার উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

পাঁচ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত এই রাস্তা গতবছরের এপ্রিলে শুরু হয়ে শেষ হয় চলতি বছরের এপ্রিল মাসে। কুমারপাড়া, নয়াড়ক ও চৌহাট্টা রাস্তার নতুন করে ১৬ মিটার করা হয়েছে। এই রাস্তা প্রশস্থ হওয়ায় আর কোন যানজট সৃস্টি হবে না উল্লেখ করে সিসিক মেয়র বলেন, এই এলাকার সম্মানিত বাসিন্দারা তাদের মূল্যবান জমিটুকু জনস্বার্থে ছেড়ে দিয়েছেন। যার ফল ভোগ করছেন নগরবাসী।

সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, আমি মেয়র হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের আগে সিসিক ছিল একটি ঋণগ্রস্ত প্রতিষ্ঠান। নিজস্ব আয়ের তেমন কোনো উৎস ছিল না। আমি মেয়র হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পর বিভিন্ন উন্নয়ন খাত ও আয়ের উৎস সৃষ্টি করে সিসিক’কে নিজের পায়ে দাঁড়ানোর মতো সেবামূলক প্রতিষ্ঠানে পরিণত করেছি।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মোনাজাত করেন নয়াসড়ক মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা মো. সাইফুল্লাহ। এসময় সিটি কর্পোরেশনের সচিব মো. বদরুল হক, প্রধান নির্বাহী প্রকৌশলী নূর আজিজুর রহমান, নির্বাহী প্রকৌশলী আলী আকবর, নয়াসড়ক মসজিদের মোতয়াল্লি রাজা মিয়া সহ এলাকার গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।