দশ জেলায় বজ্রপাতে প্রাণ গেলো ১৯ জনের মৃত্যু

সময়ের ডাক ডেস্ক:  ঢাকা: দেশজুড়ে থেমে থেমে বৃষ্টি ও ঝড়ের সঙ্গে চলছে বজ্রপাত। এতে নিত্যই ঘটছে প্রাণহানি। বুধবারও (৯ মে) দেশের দশ জেলায় বজ্রপাতে প্রাণ গেছে ১৯ জনের। দগ্ধ হয়েছেন আরও ৩১ জন। এর মধ্যে হবিগঞ্জে ছয়জন, সুনামগঞ্জ,, মানিকগঞ্জ, রাজশাহী ও কিশোরগঞ্জে দু’জন করে এবং সিরাজগঞ্জ, গাইবান্ধা, ময়মনসিংহ ও নারায়ণগঞ্জে সিলেটে একজন করে মারা গেছেন।

বুধবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ঝড় ও বজ্রবৃষ্টিতে এ হতাহতের খবর মিলেছে।

সিলেট : সিলেটের গোয়াইনঘাটে বজ্রপাতে এক যুবক নিহত হয়েছেন। নিহত যুবক কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার মোরারগাঁও এলাকার চন্ডু মিয়ার ছেলে নুরুল হক (৩০)।বুধবার (৯মে) বিকেলে গোয়াইনঘাটের কামার গ্রাম এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান খালেদুর রহমান বজ্রপাতে যুবক নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

  হবিগঞ্জ: হবিগঞ্জে পৃথক স্থানে বজ্রপাতে ছয় কৃষক নিহত হয়েছেন। বুধবার দুপুরে তারা হাওরে ধান কাটতে গিয়ে বজ্রপাতের কবলে পড়েন। এতে আহত হয়েছেন আরও ছয়জন।জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, বুধবার দুপুরে হঠাৎ জেলার বিভিন্ন স্থানে তুমুল কালবৈশাখী ঝড় শুরু হয়। মাত্র আধা ঘণ্টা স্থায়ী হয় ঝড়। এ সময়ে ঝড়ে হাওয়ায় ধান কাটা অবস্থায় ছয়জন কৃষক বজ্রপাতে মারা যান।এর মধ্যে বানিয়াচংয়ের মাকালকান্দি হাওরে দাইপুর গ্রামের বসন্ত দাশের ছেলে স্বপন দাশু (৩৫)। একই উপজেলার নূরপুর হাওরে সিরাজগঞ্জ জেলার দত্তকান্দি এলাকার বাসিন্দা জয়নাল উদ্দিন (৬০) মারা যান। এ দুটি স্থানে আহত হন আরও ছয়জন।

এছাড়াও নবীগঞ্জ উপজেলার বৈলাকীপুর গ্রামের হাওরে নারায়ন পাল (৪০) ও আমড়াখাই হাওরে হাবিব উল্লাহর ছেলে আবু তালিব (২৫) বজ্রপাতে মারা যান।

অপরদিকে লাখাই উপজেলার তেঘরিয়া হাওরে সফি মিয়া (৫৫) ও মাধবপুর উপজেলার পিয়াইম হাওরে রাম কুমার সরকারের ছেলে জোহর লাল সরকার (১৮) বজ্রপাতে মারা যান।

জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অফিসের বজ্রপাতের তথ্য সংগ্রহের দায়িত্বরত কর্মী আব্দুল নূর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সুনামগঞ্জ: সুনামগঞ্জে পৃথক স্থানে বজ্রপাতে দুই কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। এ দু’জন হলেন- ধর্মপাশা উপজেলার সদর ইউনিয়নের দুর্বাকান্দা গ্রামের আব্দুর রহিমের ছেলে জুয়েল আহমদ (১৬) ও শাল্লা উপজেলার আটগাঁও ইউনিয়নের কাশিপুর গ্রামের ইসহাক আলীর ছেলে আলমগীর মিয়া (২২)।

সিরাজগঞ্জ: সিরাজগঞ্জের কাজিপুর বজ্রপাতে সমতুল্লাহ (৫০) নামে এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় শাকিল মিয়া (১৫) নামে এক স্কুলছাত্র দগ্ধ হয়েছে। সমতুল্লাহ উপজেলার নাটুয়ারপাড়া ইউনিয়নের পানাগাড়ি গ্রামের বাসিন্দা। আহত শাকিল একই উপজেলার খাস রাজবাড়ি গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে।

গাইবান্ধা: গাইবান্ধার ফুলছড়িতে বজ্রপাতে মহর আলী (৩৫) নামে এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। মহর উপজেলার আলী উড়িয়া ইউনিয়নের কাবিলপুর গ্রামের মৃত আব্দুর রশিদ মিয়ার ছেলে।

মানিকগঞ্জ: মানিকগঞ্জের দৌলতপুরে বজ্রপাতে ইয়াকুব আলী (৪৫) নামে এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। ইয়াকুব উপজেলার বাঁচামারা ইউনিয়নের হাচাদিয়া গ্রামের হাবেজ আলীর ছেলে।

এছাড়া দৌলতপুরের কলিয়া ইউনিয়নের তালুকনগর এলাকায় বজ্রপাতে আশরাফুল ইসলাম অন্তর নামে এক স্কুলছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে আরও সাত স্কুলছাত্র।

রাজশাহী: রাজশাহীর তানোর উপজেলায় বজ্রপাতে দু’জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও দু’জন। নিহত দু’জন হলেন- উপজেলার পাঁচন্দর ইউনিয়নের দুবইল নামোপাড়া গ্রামের সামসুদ্দীনের ছেলে সোহাগ আলী (১৮) ও বাতাসপুর গ্রামের লোকমান আলী ছেলে কৃষক আনছার আলী (৩০)। আহতদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

ময়মনসিংহ: ময়মনসিংহ সদর উপজেলায় বজ্রপাতে আলাল উদ্দিন নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া ময়মনসিংহের পৃথক স্থানে বজ্রপাতে আরও ১২ জন দগ্ধ হয়েছেন। তাদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।