মোদির কাছে কোনো দলের বিরুদ্ধে নালিশ করিনি: কাদের

 

সময়ের ডাক ডেস্ক: আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, আমি ভারতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বৈঠককালে দেশের কোনো রাজনৈতিক দলের বিরুদ্ধে নালিশ করিনি। রাজনীতি নিয়ে দেশে কথা বলবো, বিদেশে গিয়ে নয়। অথচ বিএনপি কথায় কথায় বিদেশিদের কাছে ধর্ণা দিচ্ছে।তিনি বলেন, বিএনপি আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে জনগনের সাড়া না পেয়ে বিদেশিদের কাছে গিয়ে বারবার ধর্ণা দিচ্ছে। বিদেশিদের কাছে তারা সরকারের বিরুদ্ধে নালিশ করছে।রোববার সকাল ১১টায় নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চত্বরে ৪৯টি উন্নয়ন প্রকল্পের ভিত্তি প্রস্তর ও ১১শ ৪০জন কৃষকের মাঝে নগদ টাকা, সার এবং বীজ বিতরণ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, বেগম খালেদা জিয়াকে দণ্ড দিয়েছে আদালত, মুক্তিও দিতে পারে আদালত। বিএনপির নেতারা একেকবার একেক ইস্যু নিয়ে মিথ্যাচার করছে। বেগম জিয়া অসুস্থ। মানবিক দিক থেকে সরকার যা যা করণীয় সব কিছু জেলকোড অনুযায়ী চিকিৎসা করার ব্যবস্থা নিচ্ছে। শারীরিক অবনতি হলে সেটাও সক্রিয় বিবেচনা করা হবে। আওয়ামী লীগের এখানে কিছুই করণীয় ছিল না। আদালতে ১০ বছরএ মামলা চলেছে।

সেতুমন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়া সময় ক্ষেপণ করে ১৫২ দিন তিনি আদালতে হাজিরা দেননি। কিন্তু খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে বিএনপি আজও অশুভ রাজনীতি শুরু করে দিয়েছে।

তিনি বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে কোটা সংস্কারের আন্দোলন হয়েছে। বিএনপি ওই আন্দোলনে ঢুকে তারা সরকার বিরোধী আন্দোলন করার জন্য লন্ডন থেকে সব আন্দোলনের নির্দেশনা দিয়েছে তারেক জিয়া। তা অডিও-ভিডিওতে সবকিছু ধরা পড়েছে।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন, নোয়াখালীর জেলা প্রশাসক মো. মাহবুব আলম তালুকদার, পুলিশ সুপার মো. ইলিয়াছ শরীফ, বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদল, ভাইস চেয়ারম্যান আজম পাশা চৌধুরী রুমেল,উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. জামিরুল ইসলাম,সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. মাহফুজুর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি খিজির হায়াত খান, সাধারণ সম্পাদক নুরনবী চৌধুরী, নোয়াখালী পল্লী বিদ্যুতের জিএম প্রমুখ।

মন্ত্রী আরও বলেন, আগামী জুন মাসের মধ্যে কোম্পানীগঞ্জে শত ভাগ বিদ্যুতায়ন, ঘরে ঘরে গ্যাস সংযোগ দেয়া হবে।

 

তিনি বলেন, এ সরকারের আমলে নোয়াখালীর দুঃখ নোয়াখালীর খাল ছিল। নোয়াখালীর খাল সংস্কার করা হয়েছে। মুছাপুর ক্লোজার বাঁধ নির্মাণ করা হয়েছে। সোনাপুর থেকে জোরারগঞ্জ পর্যন্ত ৫৬ কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণ করা হয়েছে।

কোম্পানীগঞ্জ-সোনাগাজী সীমানায় ছোট ফেনী নদীর ওপর ৭৪ কোটি টাকা ব্যায়ে ব্রিজ নির্মাণ করা হয়েছে।

কাদের বলেন, সেনাবাহিনী দুইটি রেগুলেটর ১০ বেড়িবাঁধ নির্মাণ কাজ করছে। নির্বাচনী এলাকায় অসংখ্য কালভার্ট, ব্রিজ, রাস্তা পাকাকরণ করা হয়েছে। এছাড়া বিভিন্ন কলেজ, স্কুল, মাদ্রাসায় একাডেমিক ভবন নির্মাণ করা হয়েছে।